আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একটি মাদ্রাসায় আক্রমণ, শিক্ষকসহ ৬ জনের মৃত্যু। বন্দুকধারী আটক - মহেশখালীর সব খবর

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একটি মাদ্রাসায় আক্রমণ, শিক্ষকসহ ৬ জনের মৃত্যু। বন্দুকধারী আটক


বিশেষ সংবাদদাতা।।
গোয়েন্দাদের আশংকার ভেতরেই উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে একটি মাদ্রাসায় বন্দুকধারীদের হামলায় মাদ্রাসাটির শিক্ষকসহ ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আরো বেশ কয়েকজন জন । এ ঘটনার পর সমগ্র ক্যাম্প এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।

শুক্রবার (২২ অক্টোবর) ভোরে উখিয়ার ১৮ নম্বর ক্যাম্পের ব্লক এইস ৫২ এর ক্যাম্প-১৮ এইচ-৫২ ব্লকে অবস্থিত 'দারুল উলুম নাদওয়াতুল ওলামা আল-ইসলামিয়াহ' মাদ্রাসায় রোহিঙ্গা দুষ্কৃতিকারীরা হামলা চালায় বলে জানিয়েছেন সেখানে দায়িত্বরত ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি শিহাব কায়সার খান।

হামলায় ঘটনাস্থলেই নিহত হন ক্যাম্প-১২, ব্লক-জে৫ এর মাদ্রাসার শিক্ষক, মোঃ ইদ্রীস (৩২), ক্যাম্প-৯ এর ব্লক-২৯ এর ইব্রাহীম হোসেন (২২), ক্যাম্প-১৮ এর ব্লক-এইস ৫২ এর আজিজুল হক (২৬) ও মোঃ আমীন (৩২)। এছাড়াও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় আরও ৩ জনের। তারা হলেন, ক্যাম্প-১৮ এর বাসিন্দা মাদ্রাসা শিক্ষক নুর আলম ওরফে হালিম(৪৫), ক্যাম্প-২৪ এর বাসিন্দা হামিদুল্লাহ (৫৫) ও ক্যাম্প-১৮এর ব্লক- এইস ৫২ এর মাদ্রাসা ছাত্র নুর কায়সার(১৫)।

এ ঘটনায় মুজিবুর রহমান নামে একজনকে অস্ত্রসহ আটক করেছেন ৮ আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়নের সদস্যরা।

৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এসপি শিহাব কায়সার খান বলেন, ভোররাত আনুমানিক রাত ৪ টার দিকে এফডিএমএন ক্যাম্প-১৮ এইচ-৫২ ব্লকে অবস্থিত 'দারুল উলুম নাদওয়াতুল ওলামা আল-ইসলামিয়াহ' মাদ্রাসায় রোহিঙ্গা দুষ্কৃতিকারীরা হামলা চালায়। হামলায় মাদ্রাসায় অবস্থানরত ৪ জন রোহিঙ্গা মারা যায়। এ ঘটনা জানতে পেরে ময়নারঘোনা পুলিশ ক্যাম্প-১২ এর পুলিশ সদস্যরা তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে আহতদের উদ্ধারপূর্বক চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে আরও ২ জন হাসপাতালে মারা যায়। এসময় পুলিশ হামলাকারীদের একজনকে অস্ত্রসহ (একটি দেশীয় লোডেড ওয়ান শুটারগান, ৬ রাউন্ড গুলি ও একটি ছুরি সহ হাতেনাতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

তিনি জানান, ঘটনাস্থলে উখিয়া থানা পুলিশ এসে মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট প্রস্তুত এবং মর্গে প্রেরণের ব্যবস্থা নিচ্ছে।

এদিকে এ ঘটনার পর থেকে সমগ্র এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে। পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীন উপস্থিতি ও টহল বাড়ানো হয়েছে। ক্যাম্পে অস্থিরতা ও বিশৃঙ্খলার আশংকা করছিল গোয়েন্দারা।

No comments

Powered by Blogger.