মহেশখালীতে উৎসমুখর নির্বাচন, ২১৮ ভোটে -পড়েছে ১৮৮ ভোট

সাধারণ সম্পাদক পদে দিদার বিজয়ী


এম বশির উল্লাহ ।। 
বহুল প্রতীক্ষিত মহেশখালীর পাবলিক লাইব্রেরি নির্বাচন উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্যে দিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। ২১ ডিসেম্বর (সোমবার) সকাল ১০ টা থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৪ টা উপজেলা পরিষদের হল রুমে এ ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। পাবলিক লাইব্রেরির মোট সদস্য ভোটার ২১৮ জনের মধ্যে মোট ভোট দিয়েছেন ১৮৮ জন। 

সূত্র জানায়- সহ-সভাপতি পদে এম. আজিজুর রহমান বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছিলেন। সাধারণ সম্পাদক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক এ তিনটি পদে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। সাধারণ সম্পাদক পদে- সাফায়াত জামিল দিদার বাই সাইকেল প্রতীক নিয়ে ৮৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সাংবাদিক আমিনুল হক তালা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন  ৪৫ ভোট, সাধারণ সম্পাদক পদে অন্য প্রার্থীদের মধ্যে বাঁশি রাম দে চশমা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৫ ভোট,ও  মোঃ রফিক(নিলয় রফিক) হরিণ প্রতীক নিয়ে ২৭ পেয়েছেন। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে আবদুল রশিদ টেলিভিশন প্রতীক নিয়ে ১৫২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকতটম প্রতিদ্বন্দ্বী মুনির উদ্দিন দেয়াল ঘড়ি নিয়ে পেয়েছেন ৩৪ ভোট। কোষাধ্যক্ষ শাহিন মুহাম্মদ ও দপ্তর সম্পাদক পদে ফারুক ইকবাল বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত। প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে মুহাম্মদ কামাল হোছাইন কবুতর প্রতীক নিয়ে ১১১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকতটম প্রতিদ্বন্দ্বী শাহাদাত হোসেন আপেল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৭৫ ভোট। শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক নুরুল আলম হেলালি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া কর্যকরি সদস্য হিসেবে মুহাম্মদ ইসমাইল, মুহাম্মদ কুতুব উদ্দিন ইলাহি, তন্ময় সুশীল বিশ্ব, ও মনজুর আহমেদ সবাই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ভোটগ্রহণ ও গণনা শেষে আনুষ্ঠানিক ভাবে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন। 

এদিকে মোট ২১৮ ভোটের মধ্যে ১৮৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। নিবার্চন ঘিরে একটি উৎসব মুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয় মহেশখালী সদরে। 

মন্তব্য

আগের পোস্ট পরের পোস্ট