আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

বাজার ইজারাদারের বসানো মেলা ও মাদ্রাসার সভার পূর্বানুমতি ছিলো না - মহেশখালীর সব খবর

বাজার ইজারাদারের বসানো মেলা ও মাদ্রাসার সভার পূর্বানুমতি ছিলো না


মাহবুব রোকন।। 

[খ.] ইন্ট্রোঃ 

[ মহেশখালীর মাতারবাড়িতে একটি মাদ্রাসার বার্ষিক সভা উপলক্ষে স্থানীয় বাজার ইজারাদারের বসানো মেলায় গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে দুই শিশুসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও একাধিক ব্যক্তি। আহতদের বেশীরভাগই শিশু, আহত অনেকের হাত-পা উড়ে গেছে। বেলুনে গ্যাস ভরার সিলিন্ডার বিস্ফোরণ হয়েই এ দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। আহত দুইজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য জরুরি ভাবে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তাদের অবস্থা বেশ সংকটাপন্ন বলে জানিয়েছে পুলিশ। বাজার ইজারাদারের বসানো মেলা ও মাদ্রাসার সভার পূর্বানুমতি ছিলো না বলে জানিয়েছে প্রশাসন। জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় ভাবে নিহতদের পরিবারে আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন এলাকার সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক। ]  

[গ.] মূল ঘটনাঃ 

জানাগেছে -শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার মাতারবাড়ি ইউনিয়নের মাতারবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এ ঘটনা ঘটে। ওখানে একটি মাদ্রাসার ধর্মীয় মাহফিল উপলক্ষে শিশু ও লোকজন জমায়েত হয়েছিল, জানান -স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ। আহত অনেকের অবস্থায়ই সংকটাপন্ন, তাদেরকে চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। দুই জনকে জরুরি ভাবে চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

[ঘ.] নিহতদের পরিচয়ঃ 

নিহতরা হলেন -মাতারবাড়ি দক্ষিণ মিয়াজীর পাড়া এলাকার জাহাঙ্গীর আলম মোহাম্মদ আহসান (১২), বলির পাড়া এলাকার আজিজুর রহমানের পুত্র এমদাদুল রহমান (১০) ও বেলুন বিক্রেতা চকরিয়া উপজেলার হারবাং এলাকার মোহাম্মদ আলমগীর (২৫)। এ ঘটনায় অন্ততঃ ১৩ জন আহত হয়েছে বলে খবর পাওয়াগেছে। 

[ঙ.] আহতদের পরিচয়ঃ

আহতদের মধ্যে কয়েকজনের নাম পাওয়াগেছে। তারা হলেন -মহেশখালীর শাপলাপুর ষাইটমারা এলাকার কবির আহমদের পুত্র মোহাম্মদ নুরী (১৫), মাতারবাড়ির উত্তর রাজঘাট এলাকার কাইসারুল ইসলামের পুত্র জিহাদুল ইসলাম আব্দুল্লাহ (১২), কালারমার ছড়ার নলবিলা এলাকার নুর মোহাম্মদের পুত্র মো.মারুফ (১২), মাতারবাড়ি সিকদার পাড়া এলাকার ফরিদুল আলম এর পুত্র সাদেকুল ইসলাম প্রকাশ রাহাত (১৩), মগডেইল এলাকার আব্দুল মনুর পুত্র মোঃ নুরী (১৩), সিকদার পাড়া এলাকার আব্দুল মোনাফ এর পুত্র তুহিন (১৪) ও বদন এর পুত্র জয়নাল আবেদীন (১২)।  

[চ.] ওসির বক্তব্যঃ 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মহেশখালী থানার ওসি আবদুল হাই জানান -খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে হতাহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মরদেহ উদ্ধার করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। 

[ছ.] মাতারবাড়ির চেয়ারম্যান বললেনঃ 

মাতারবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাস্টার মোহাম্মদ উল্লাহ বলেন, শুক্রবার মাতারবাড়ির একটি মাদ্রাসার বার্ষিক ধর্মীয় সভার আয়োজন ছিল। এ উপলক্ষে সকাল থেকে মাদ্রাসা সংলগ্ন এলাকাসহ স্থানীয় মাতারবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে নানা ধরনের দোকানপাট বসে। সেখানে গ্যাস বেলুনের পসরাও বসে। জনাকীর্ণ ওই স্থানেই বেলুনে ভরার গ্যাসের একটি সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ঘটনাস্থলেই একজন নিহত হন। অনেকই গুরুতর আহত হয়। অনেকের দেহ থকে হাত, পা ও মাথা বিচ্ছিন্ন হয়েগেছে। এ সময় বেশ কয়েকটি দোকান ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পরে হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরও দুই জনের মৃত্যু হয়। 

[জ.] ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের বক্তব্যঃ

ঘটনার পরপরই মাতারবাড়িতে উদ্ধার কাজে যান ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর মহেশখালী ইউনিট। মহেশখালীর স্টেশন অফিসার পুলক কান্তি সরকার জানিয়েছেন -ঘটনাটি নানা ভাবে বিস্তৃত হওয়ায় এ মুহূর্তে ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করা সম্ভব হচ্ছে না। মাদ্রাসার সভা ও উপলক্ষে বসা মেলার কোন অনুমতি ছিলনা। মূলতঃ সিলিন্ডারে অতিমাত্রায় গ্যাস উৎপাদনের রাসায়নিক দেওয়া থাকায় ধারণ ক্ষমতার বাইরে গ্যাস উৎপাদন হয় সিলিন্ডারটি বিস্ফোরণ হতে পারে বলে তিনি অভিমত দেন। বিষয়টি পুলিশ কেস এর আওতাধীন বলে জানান তিনি। 

[ঝ.] সহকারী পুলিশ সুপার যা বললেনঃ 

মহেশখালী ও কুতুবদিয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জাহেদুল ইসলাম জানিয়েছেন, মাতারবাড়ির একটি মাদ্রাসার বার্ষিক ধর্মীয় সভা উপলক্ষে স্কুল মাঠে মেলা বসে। মেলায় বিভিন্ন দোকানপাট বসে। ওখানে বেলুনের গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনা ঘটে। গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণের কারণ জানতে পুলিশের পাশাপাশি সিআইডির একটি দল কাজ করছে। পুলিশ মরদেহগুলো উদ্ধার করেছে, রাত ৯টার দিকে মরদেহগুলো ময়না তদন্তের জন্য জেলা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। মহফিলের আয়োজক ও বাজার ইজারাদারের কোন গলদ আছে কী না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান তিনি। 

[ঞ.] প্রশাসনের অনুমতি ছিলো নাঃ 

মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহফুজুর রহমান জানিয়েছেন -সভা ও মেলা -কোনটারই অনুমতি ছিলো না, এমন সমাবেশ করতে হলে জেলা প্রশাসকের অনুমতি নিতে হয়; তারা সেটি করেনি। মহেশখালীতে অনেকই এমন আয়োজন করতে অনুমতি নেয় না। এ সব বিষয়ে কঠোর হবে প্রশাসন। সার্বিক বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে, বেলুনের এমন গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবহার সার্বিক বিষয় নিয়ে দ্রুত প্রশাসন গণ-বিজ্ঞপ্তি দিবে বলেও জানান তিনি।  

[ট.] নিহতদের পরিবারে অনুদানঃ 

এদিকে এ ঘটনার পর নিহতদের পরিবারকে ১০ হাজার টাকা করে অনুদান দেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ উল্লাহ, রাতে জেলা প্রশাসকের তরফে নিহতেরে প্রতি পরিবারকে ২৫ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হয়। মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহফুজুর রহমান অনুদানের এ টাকা পৌঁছিয়ে দেন। 

[ঠ.] শেষ খবরঃ 

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আহত অনেকের অবস্থা সংকটাপন্ন বলে জানাগেছে। আহত দুইজনকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। তারা হল মাতারবাড়ির রাজঘাট এলাকার জিহাদুল ইসলাম আব্দুল্লাহ ও কালারমার ছড়ার চালিয়াতলী এলাকার মো. মারুফ। দেহ থেকে তাদের অন্য অঙ্গ বিচ্ছিন্ন হয়েগেছে বলে জানাগেছে। 

[ড.] এমপি / উপজেলা চেয়ারম্যানঃ

এদিকে মাতারবাড়ির এ মর্মান্তিক ঘটনায় শোক ও সহমর্মিতা প্রকাশ করেছেন এলাকার সাংসদ আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক। সন্ধ্যায় তিনি আহতদের দেখতে চট্টগ্রামের হাসপাতালে ছুটে যান। তাছাড়া ঘটনার পরপরই মহেশখালী উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শরীফ বাদশা মাতারবাড়ির ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। 

 

No comments

Powered by Blogger.