-->
বয়স্ক স্বামী তাই পরকীয়া, শেষে প্রেমিকার হাতে ৫ টুকরা হলেন যুবক

বয়স্ক স্বামী তাই পরকীয়া, শেষে প্রেমিকার হাতে ৫ টুকরা হলেন যুবক

কম বয়সী স্ত্রী, বয়স্ক স্বামী; তাই এক যুবককে পরকীয়ার জন্য জুটিয়ে নেন স্ত্রী।  দীর্ঘদিন ধরে সেই যুবকের সঙ্গে সম্পর্ক অবৈধ সম্পর্ক চালিয়ে আসছেন প্রেমিকা। হঠাৎ সম্পর্কের টানা পোড়েনে প্রেমিককেই তার বাসায় হত্যা করে হাত পা কেটে পুরো লাশটি ৫ টুকরো করে বাসায় ফেলে রাখেন। এ ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে প্রেমিকা শাহনাজ পারভীনকে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর স্বামীবাগের কে এম দাস লেন এলাকার একটি বাড়ির চারতলায় এই ঘটনা ঘটেছে। 

পুলিশ জানিয়েছে, নিহত প্রেমিকের নাম সজিব হাসান (৪০)।  তিনি শ্যামলী পরিবহন কাউন্টারের স্টাফ। ওই প্রেমিকার স্বামী বয়স্ক হওয়ায় সজিবের সঙ্গে তিনি অবৈধ সম্পর্কে জড়িয়েছেন বলে দাবি করছেন। ওই প্রেমিকার বয়স আনুমানিক বয়স আনুমানিক ৪৫ থেকে ৪৭ এর মধ্যে।

ওয়ারী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মাহবুব আলম গণমাধ্যমকে বলেন, আমরা ঘটনাটি তদন্ত করে দেখছি। এই ঘটনা ওই প্রেমিকাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। সম্প্রতি তাদের অবৈধ সম্পর্কে ভাটা পড়ায় এই ঘটনা ঘটেছে বলে দাবি করছেন গ্রেফতারকৃত প্রেমিকা শাহনাজ পারভীন। এই নারী বিবাহিতা


ওয়ারী ডিভিশনের (ডিসি) শাহ ইফতেখার আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘ওই চারতলা থেকে সজীবের পাঁচ খণ্ড মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। আটক নারীর সঙ্গে সজীবের পরকীয়া সম্পর্ক ছিল। ওই নারী বুটিকের কাজের কথা বলে প্রায়ই সজীবের বাসায় যেতেন। প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি, টাকা-পয়সার বিষয় নিয়ে সজিবের সঙ্গে তার ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে ছুরি দিয়ে ওই নারীকে আঘাত করেন সজিব। এতে ওই নারীর হাত কেটে যায়। পরে পারভীন ছুরি কেড়ে নিয়ে তাকে এলোপাতাড়ি আঘাত করে। এতে সজীব ঘটনাস্থলে মারা যান। পরে তার দুই পা, দুই হাতসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ কেটে ফেলেন। আমরা সংবাদ পেয়ে সজিবের মরদেহ উদ্ধার করি। ’ আরও বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে বলেও জানান তিনি।

শিরোনাম ছিলো.. "বয়স্ক স্বামী তাই পরকীয়া, শেষে প্রেমিকার হাতে ৫ টুকরা হলেন যুবক"

Post a Comment

Iklan Atas Artikel

Iklan Tengah Artikel 1

Iklan Tengah Artikel 2

Iklan Bawah Artikel