আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

কালারমার ছড়ায় অনৈতিক সুবিধা না পেয়ে চাকরি খাওয়ার হুমকি সংখ্যালঘু ধর্মীয় নেতার - মহেশখালীর সব খবর

কালারমার ছড়ায় অনৈতিক সুবিধা না পেয়ে চাকরি খাওয়ার হুমকি সংখ্যালঘু ধর্মীয় নেতার

নিউজরুম।। কালারমার ছড়া ইউনিয়ন পরিষদে অনৈতিক উপায়ে জন্ম নিবন্ধন করতে না পারায় ইউনিয়ন পরিষদের সচিব নজরুলের চাকরি খাওয়ার হুমকি দিলেন বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী নেতা সুমন বড়ুয়া। তিনি সৈকত বৌদ্ধ বিহারে কর্মরত। 

জানাগেছে -মঙ্গলবার বেলা ১২ টায় ইউনিয়ন পরিষদে এসে বিপ্লব বড়ুয়া নামে এক প্রবাসীর জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করতে যায়। বিধি মোতাবেক সংশোধনের কাগজপত্র চাইলে তিনি দিতে পারেনি এবং অনৈতিক উপায়ে জন্মনিবন্ধন করে দেওয়ার প্রস্তাব দেওয়া হয়। তাতে রাজি না হওয়ায় সংখ্যালঘুদের হয়রানি করার অভিযোগ এনে চাকরি খাওয়ার হুমকি দেন। এটা নিয়ে সংখ্যালঘু ধর্মীয় নেতা সুমনের হুমকিতে চাকরি নিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানান ইউনিয়ন পরিষদের সচিব নজরুল ইসলাম। 

এ নিয়ে ইউনিয়ন পরিষদের সচিব নজরুল ইসলাম তার ফেসবুক ওয়ালে একটি স্ট্যাটাস দেন। নিচে তার ফেসবুক স্ট্যাটাস হুবুহু তুলে দেওয়া হলো। 

সুমন নামের এক ধর্মীয় নেতা প্রবাসী ভিন্ন একজনের জন্ম নিবন্ধন সংশোধনের জন্য এসে বিধি মোতাবেক সংশোধনের কোন   ডকুমেন্টস  দিতে  পারে নি। তখন সে আমাকে বলে আমার বিরুদ্ধে নাকি সংখ্যালঘুদের হয়রানি করার অভিযোগ এনে আমার চাকরি খাবে, না হয় কোন ডকুমেন্টস  ছাড়া তাহার আনা অনুপস্থিত বিপ্লব বড়ুয়া নামের একজনের জন্ম নিবন্ধন সংশোধন করে দিতে হবে।  আমি তাকে বল্লাম যাও তুমি আমার চাকরি খাও। অথচ  সংখ্যালঘু মনে করে লাইনে দাড়ানো লোকদের বাইরে তাকে ঢুকতে দিই। অনৈতিক সুবিধা না পেয়ে এমনভাবে মাতলামি শুরু করে দিল, যেন প্রকৃত সংখ্যালঘু হলাম আমি।

বৌদ্ধধর্মাবলম্বী ধর্মীয় নেতা সুমন বড়ুয়ার সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে ফোনে সংযোগ না দেওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। আমরা এ বিষয়ে তার বক্তব্য নেওয়ার চেষ্টা অব্যহত রেখেছি। 

এ বিষয়ে কালারমার ছড়ার ইউপি চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরীফ বলেন, অনৈতিক উপায়ে অনিয়ম করে কাউকে জন্মনিবন্ধন সংশোধন করে দেওয়া যায় না। সে সংখ্যালঘু হউক বা অন্য কেউ হউক। আইন আর নিয়ম অনুযায়ী সব ডকুমেন্ট থাকলেই সেবা পাবে।

No comments

Powered by Blogger.