তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে এ পর্যন্ত ৫৫১টির ফলাফল সমন্বয় করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এতে ভোট পড়েছে ৭৭ শতাংশ।

ইসি’র সমন্বয় করা প্রতিবেদন বিশ্লেষণে দেখা গেছে, আওয়ামী লীগের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ২৯ জন প্রার্থীসহ মোট ৩৫৩টি ইউপিতে জয় পেয়েছে দলটি। আর বিএনপি পেয়েছে ৫৭টিতে জয়। এছাড়া স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ১২১ ইউপিতে, জাতীয় পার্টি ১০টি, জাসদ ১টি এবং অন্যান্যরা ৯টি ইউপিতে জয় পেয়েছে।
 
তৃতীয় ধাপে ৬১৬টি ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার তারিখ নির্ধারণ ছিল। তবে শনিবার (২৩ এপ্রিল) ভোট হয়েছে ৬১৪টিতে। এরমধ্যে চেয়ারম্যান পদে ভোট হয়েছে ৫৮৭টিতে। কারণ ২৯ ইউপিতে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। আর দু’টি ইউপিতে সব পদেই প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।
 
রোববার (২৪ এপ্রিল) দুপুর পর্যন্ত ইসিতে ৬১৪টির মধ্যে ৫২২টির ফলাফল এসেছে। এতে আওয়ামী লীগ ৩২৪, বিএনপি ৫৭টি ইউপিতে ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ১২১ ইউপিতে বিজয়ী হয়েছেন। এছাড়া জাতীয় পার্টির ১০টি, জাসদ ১টি এবং অন্যান্যরা ৯টিতে জয় পেয়েছেন।
 
ইসির নির্বাচন ব্যবস্থাপনা শাখার কর্মকর্তারা জানান, ৫৭টি ইউপি’র ফল পেন্ডিং রয়েছে। এছাড়া দুর্গম এলাকা হওয়ায় পার্বত্য এলাকার ৮টি ইউপির ফলাফল আসতে কয়েকদিন সময় লেগে যাবে।
 
৫২২ ইউপির ফলাফল বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ৯৩ লাখ ২০ হাজার ১৯৪ ভোটারের মধ্যে ৭১ লাখ ৯৩ হাজার ৮৬৪ জন ভোট দিয়েছেন। যা মোট ভোটের ৭৭ দশমিক ১৯ শতাংশ।
 
প্রদত্ত ভোটের মধ্যে বৈধ ভোট রয়েছে ৭০ লাখ ৪৫ হাজার ৭১৩ টি। এদিকে বাতিল হয়েছে ১ লাখ ৪৮ হাজার ১৫১ ভোট। বৈধ ভোটের মধ্যে আওয়ামী লীগ পেয়েছে ৩২ লাখ ভোট। যার শতকরা হার ৪৫ শতাংশ। আর বিএনপি পেয়েছে ১৪ লাখের মতো ভোট, যার শতকরা হার ২০ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ। অন্যদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পেয়েছেন ২১ লাখের মত ভোট।
 
প্রথম ধাপের ইউপি নির্বাচনে ৭৪ শতাংশ ও দ্বিতীয় ধাপে ৭৮ শতাংশ ভোট পড়েছিল। দুই ধাপে আওয়ামী লীগ ১০০১ ইউপিতে ও বিএনপি ১০৮ ইউপিতে জয় পেয়েছে।
 
দেশের সাড়ে প্রায় সাড়ে চার হাজার ইউপিতে এবার ছয় ধাপে নির্বাচন করছে ইসি। আগামী ৭ মে অনুষ্ঠিত হবে চতুর্থ ধাপের ভোট। এরপর ২৮ মে পঞ্চম ধাপ ও ৪ জুন ষষ্ঠ ধাপের ভোটগ্রহণের মধ্য দিয়ে ইউপি নির্বাচন সমাপ্ত হবে।
শেয়ার:

মন্তব্য দিন: