মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের একটি বড় আস্তানায় গতকাল রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে দ্বীপাঞ্চলের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী বদিউল আলমকে গ্রেফতার করেছে। এসময় সন্দেহজনক অপর এক ব্যক্তিকেও আটক করা হয় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য। এই আস্তানা থেকে উদ্ধার করা হয় অস্ত্র, গুলি, তরল মদ ও ইয়াবার খালি প্যাকেট ও ইয়াবা সেবনের সরঞ্জাম । 

অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়া মহেশখালী থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান -মহেশখালীতে ভয়ানক মাদক ইয়াবার বিস্তারে যে কয়েকজনের একটি শক্তিশালী সিন্ডিকেট কাজ করছে তাদের একজন বদিউল আলম। হোয়ানকের বড়ছড়া এলাকার বাসিন্দা জনৈক মৃত: উলামিয়ার পুত্র বদিউল আলম (৪৫) দীর্ঘ দিন থেকে টেকনাফ, মিয়ানমার ও মহেশখালী ভিত্তিক মাদকের একটি শক্তিশালী আন্ডারগ্রাউন্ড নেটওয়ার্ক পরিচালিত করে আসছিল। 

এই বদিউল ইয়াবার একটি হোলসেলার হিসেবেই পুলিশের কাছে তথ্য রয়েছে। সমগ্র উপজেলার অপরাধচক্রের কাছে ইয়াবার পাইকারি ব্যবসা চালিয়ে আসছিল বদিউল। সে তার স্ত্রীকে দীর্ঘদিন থেকে মাদক পরিবহনের কাজে ব্যবহার করে আসছিল। 

ওসি জানান -বিগত সময় তাকে ধরতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী একাধিক অভিযান চালিয়েও ব্যর্থ হয়। অবশেষে পুলিশ নিজস্ব গোয়েন্দা সূত্র ব্যবহার করে রাতে তাকে ধরতে অভিযান চালায়। হোয়ানকের মিলন মার্কেটের উপরে একটি বিশেষ কায়দায় তৈরি করা আস্তানায় কয়েকজন ইয়াবা ব্যবসায়ী গোপন বৈঠক করছে -খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ওই আস্তানায় অভিযান চালায়। 

এসময় তাকে হাতেনাতে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ। তার কাছ থেকে দুইটি দেশিয় তৈরি এলজি, ৬ রাউন্ড তাজা গুলি ও প্রায় একশ লিটার তরল মদ উদ্ধার করা হয়। এব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করা হবে বলে ওসি জানান। 

















শেয়ার:

মন্তব্য দিন: