ক্লাব ফুটবলের রোমাঞ্চ, শিহরণ, উত্তেজনা শেষ। এবার জাতীয় দলের হয়ে মাঠে নৈপুণ্যের ফুল ফোটানোর পালা। এমন এক ম্যাচ দিয়ে নতুন সূচনা, যে ম্যাচ গোটা ফুটবলবিশ্বকে দু’ভাগে ভাগ করে দেয়।

হ্যাঁ, ব্রাজিল বনাম আর্জেন্টিনা। লাতিন ফুটবলের দুই পরাশক্তি এই হাইভোল্টেজ প্রীতি ম্যাচে আজ মুখোমুখি অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে (এমসিজি)। এই সুপারক্লাসিকো ম্যাচ দিয়ে জর্জ সাম্পাওলির আর্জেন্টিনা-অধ্যায় শুরু হবে কোচ হিসেবে।

এদিকে লিওনেল মেসি দেখা করতে গিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার রাগবি দলের খেলোয়াড়দের সঙ্গে। জার্সি বদল করেন অসি রাগবি তারকা উইল জেনিয়ার সঙ্গে।

ব্রাজিল দলের সবাই রয়েছে ফুরফুরে মেজাজে। তাদের অনুশীলনে প্রবেশে সংবাদমাধ্যমের কোনো বাধা ছিল না। ব্রাজিলের ভয় প্রতিপক্ষের ঝানু কোচ সাম্পাওলিকে নিয়ে।

সে কারণেই ফার্নান্দিনহো জানালেন, ‘ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার মধ্যে কখনওই প্রীতি ম্যাচ হতে পারে না। দু’দলই জিততে চায়। আমরা ছন্দ ধরে রাখার ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী। তবে আর্জেন্টিনার নতুন কোচ চিলি এবং সেভিয়ার মতো দলকে সফলভাবে পরিচালনা করেছেন। এটা ওদের জন্য বড় প্রেরণা। কিন্তু তিতের কোচিংয়ে আমরা এখনও হারিনি। এ ম্যাচেও জিততে চাই।’

আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ব্রাজিল তাদের অন্যতম সেরা তারকা যথারীতি নেইমারের অভাব অনুভূত করবে বলে মনে করেন আর্জেন্টিনার নতুন কোচ হোর্হে সাম্পাওলি। আর্জেন্টিনা দলে যথারীতি আছেন বার্সেনোলার তারকা ফরোয়ার্ড লিওনেল মেসি। কিন্তু ব্রাজিল দলের পরিকল্পনায় রাখা হচ্ছে না মেসির ক্লাব সতীর্থ নেইমারকে। বিশ্রাম দেয়া হয়েছে এই তারকা ফরোয়ার্ডকে।

এদগার্দো বাউজার স্থলাভিষিক্ত হওয়ার পর এটাই সাম্পাওলির প্রথম ম্যাচ। আর্জেন্টিনা কোচের বিশ্বাস, নেইমারকে ছাড়া ব্রাজিলের সেরাটা না-ও দেখা যেতে পারে। তবে গ্যাব্রিয়েল জেসুস, ফিলিপে কৌতিনিহো, দগলাস কস্তাসহ প্রতিপক্ষ দলের অন্য খেলোয়াড়দের হালকাভাবে নিচ্ছেন না তিনি। নেইমার প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের সাম্পাওলি বলেন, ‘সে একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। নিশ্চিতভাবে সে বিশ্বের সেরাদের একজন। ব্রাজিল তার অভাব বোধ করবে। যাহোক, ব্রাজিলের অনেক ভালো খেলোয়াড় আছে। নেইমারকে ছাড়াও তারা ভালো করতে পারে।’

স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেও প্রীতি ম্যাচে খেলবে ব্রাজিল। সেলেকাওদের বিপক্ষে ম্যাচ খেলে স্বাগতিক সিঙ্গাপুরের মুখোমুখি হবেন মেসিরা।
শেয়ার:

মন্তব্য দিন: