মহেশখালীতে উন্নয়ন প্রকল্প নিয়ে স্থানীয়দের অধিকার বিষয়ে আয়োজিত এক সমাবেশ পণ্ড করে দিয়েছে পুলিশ। ৬ জানুয়ারি সোমবার স্থানীয় কালারমার ছড়া মাঠে এক সমাবেশের ডাক দিয়েছিল -‘মহেশখালী জাগ্রত ছাত্রসমাজ’ নামের একটি সংগঠন। তবে পুলিশ বলছে এ সমাবেশের অনুমতি ছিল না, এ নিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সম্ভাবনা ছিল।

সংগঠনটির প্রধান সমন্বয়ক -ফজলে আজিম মোঃ ছিবগাতুল্লাহ সব খবরকে বলেন -আমরা সরকারের উন্নয়ন প্রকল্পের বিরোধিতা করছি না, প্রকল্পের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে যথাযথ মূল্যায়ন করার কথা বলছি। প্রশাসনকে সমাবেশের বিষয়ে অবগত করা হয়েছিল, তবে আমাদেরকে তারা লিখিত অনুমোদন দেননি। এরিমধ্যে একটি সুবিধাভোগী দালালচক্র সক্রিয় হয়ে ওঠে, প্রশাসন পরিকল্পিত ভাবে পুলিশ দিয়ে সংগঠনের সদস্যদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে নানা হুমকি দেয় এবং সমাবেশস্থল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে মঞ্চ করতে ও সমাবেশ করতে দেয়নি।

মহেশখালী থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) প্রভাষ চন্দ্র ধর সব খবরকে বলেন -এখানে সমাবেশ করার কোন অনুমতি ছিল না। আয়োজনকারী সংগঠনের লোকজনকে বার বার তাগিদ দেওয়া হয়েছিল সংশ্লিষ্ট প্রশাসন থেকে অনুমতি নিয়ে সমাবেশ করতে। কিন্তু তারা তা না করে অবৈধ জনসমাগম করতে চাইছিল। অনুমতি ছাড়া বড় কোন সমাবেশ করলে অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনার সম্ভাবনা থাকে।

এদিকে আয়োজকরা এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন -অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে প্রশাসনের সিদ্ধান্তকে শ্রদ্ধা জানিয়ে সমাবেশের কর্মসূচি স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

আয়োজকদের ৮ দফা দাবির মধ্যে ছিলো -প্রকল্পের জন্য অধিগ্রহণকৃত জমির ন্যায্য মূল্য নির্ধারণ, দ্রুত সময়ের মধ্যে সম্পূর্ণ টাকার চেক হস্তান্তর করতে হবে, ওয়ান-স্টপ সার্ভিস চালু করতে হবে, প্রকল্পে দুর্নীতি ও দালালের দৌরাত্ম্য বন্ধ করতে হবে, প্রকল্পে স্থানীয়দের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে হবে, নতুন করে আর কোনো উচ্ছেদ করা যাবে না, মহেশখালীতে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ও গ্যাস সরবরাহ দিতে হবে এবং স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি নিরসন ও পরিবেশগত বিপর্যয় রোধ করতে হবে।

দাবিগুলোর বিস্তারিতঃ 

Share To:

Sobkhabor24x7

Post A Comment:

0 comments so far,add yours