-->
রাজধানীর কড়াইল বস্তিতে পুড়েছে অর্ধশত ঘর

রাজধানীর কড়াইল বস্তিতে পুড়েছে অর্ধশত ঘর

সোমবার রাত ৮টার দিকে মহাখালী টিঅ্যান্ডটি মাঠের পূর্ব দিকের বিশাল এই বস্তির বেলতলা এলাকায় আগুনের সূত্রপাত ঘটে। এক ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে বলে ফায়ার সার্ভিস কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষের কর্মকর্তা ভজন কুমার সরকার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানিয়েছেন। আগুন থেকে স্বজনদের রক্ষা করতে গিয়ে একজন এবং ধোঁয়ায় আচ্ছন্ন হয়ে আরেকজন আহত হয়েছেন। আগুনে ৫০টি ঘর পুড়েছে বলে ঘটনাস্থল থেকে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম প্রতিবেদক কামাল তালুকদার জানান। তবে ক্ষয়ক্ষতির মাত্রা বা অগ্নিকাণ্ডের কারণের বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে জানায়নি অগ্নি নির্বাপক বাহিনী। মহাখালীর বহুতল ভবনে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম কার্যালয় থেকে রাত ৮টার দিকে কড়াইল বস্তির একাংশে আগুনের শিখা ও ধোঁয়া উড়তে দেখা যায়। কিছুক্ষণের মধ্যে অগ্নি নির্বাপক বাহিনীর কয়েকটি গাড়িকেও সাইরেন বাজিয়ে ছুটতে দেখা গেছে।
তখন অগ্নি নির্বাপক বাহিনীর কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রণ কক্ষে যোগাযোগ করলে জানানো হয়, কড়াইল বস্তিতে আগুন লেগেছে। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম প্রতিবেদক কামাল তালুকদার দেখে ও বস্তিবাসীর সঙ্গে কথা বলে ৫০টি টিনের ঘর পুড়ে যাওয়ার তথ্য পান। ওই সময় সাইদুলকে আহত অবস্থায় দমকলকর্মীদের বের করে আনেন। সাইদুল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, আগুন লাগার পর পরিবারের সদস্যদের বাঁচাতে গিয়ে আহত হন তিনি। “আগুন লাগার পর ভাইয়ের পরিবারের সদস্যদের বের করে নৌকায় (পাশের লেক দিয়ে) করে ওপারে পাঠিয়ে দিই। কিছু মালামাল নিয়ে কাঁটাতারের দেওয়াল পার হওয়ার সময় আহত হই।” আগুন নেভাতে অগ্নি নির্বাপক বাহিনীর কয়েকটি গাড়ি গেলেও প্রথমে ওয়্যারলেস গেইটে যানজটে পড়ে সেগুলো। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে সংকীর্ণ পথের কারণে কাজ শুরু করতে দেরি হয় তাদের। ফায়ার সার্ভিসের এক কর্মী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “রাস্তা চিকন বলে ঢুকতে পারেনি। পরে টিটিসি ক্লাবের উপর দিয়ে কাঁটাতারের বেড়া ভেঙে পার হয়ে পানি দিতে হয়েছে।” আগুন নেভানোর পর রাত সাড়ে ৯টার দিকে বস্তির ভেতর থেকে এক যুবককে অচেতন অবস্থায় বের করে আনতে দেখেছেন কামাল তালুকদার। এদিকে আগুন লাগার পর অনেক ঘর থেকে মালামাল লুট হয় বলে একাধিক বস্তিবাসী অভিযোগ করেছেন। কেউ কেউ স্বজনদের খুঁজে পাচ্ছেন না বলে জানান। তবে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা বলছেন, তারা আগুনের কারণ এবং হতাহতের কোনো খবর পাননি।

Iklan Atas Artikel

Iklan Tengah Artikel 1

Iklan Tengah Artikel 2

Iklan Bawah Artikel