-->
মহেশখালীতে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা দস্যু পরিবারে র‌্যাবের সহায়তা

মহেশখালীতে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা দস্যু পরিবারে র‌্যাবের সহায়তা

রকিয়ত উল্লাহ।।
মহেশখালী-কুতুবদিয়া এলাকার জলদস্যুতা থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসা ৪৩ জন আলোর পথে অভিযাত্রীকে নগদ পাঁচ হাজার টাকা ও ঈদের উপহার সামগ্রী দেওয়া হয়েছে র‌্যাব-৭ এর পক্ষ থেকে। বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) দুপুরে মহেশখালী উপজেলার কালারমার ছড়া ইউনিয়ন পরিষদের হল রুমে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে তাদের কাছে নগদ অর্থ ও ঈদ উপহার সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

২০১৮ সালের ২০ অক্টোবর দক্ষিণ চট্টগ্রামর মহেশখালী-কুতুবদিয়ায় সংবাদকর্মী আকরাম হোসাইনের মধ্যস্থতায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, র‌্যাবের ডিজিসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে ৫টি দস্যু বাহিনীর ৩৭ জনসহ মোট ৪৩ জন জলদস্যু অস্ত্র ও গোলাবারুদ জমা দিয়ে আত্মসমর্পণ করেছিল। তারা ২০১৯ সালের ৯ মে জামিনে মুক্ত হয়ে স্বাভাবিক জীবন যাপন করলেও করোনাকালীন সময়ে কর্মসংস্থান হারিয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছিল। এমন পটভূমিতে তাদের সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন র‌্যাব।

করোনাতে কর্মসংস্থান হারিয়ে কষ্টে জীবন যাপন করলে আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে র‌্যাবের আর্থিক সহায়তা স্বস্তি ফিরেছে আত্মসমর্পণকারী জলদস্যুদের কাছে। এ সহায়তা বিতরণ অনুষ্ঠানে কুতুবদিয়ার জলদস্যু বাহিনীর প্রধান রমিজ বলেন, “আমি এখন স্বাভাবিক জীবন যাপন করছি। এ সহযোগিতা পেয়ে আমি করোনাকালে উপকৃত হয়েছি। মহেশখালীর কালারমার ছড়া সাবেক জলদস্যু নুরুল আলম প্রকাশ কালাবদা বলেন, “আমি নিজের ভুল বুঝতে পেরে আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছি। কিন্ত করোনাতে কর্ম হারিয়ে কষ্টে দিন কাটছিলো। প্রশাসনের নগদ অর্থ ও ঈদ সামগ্রী সহযোগিতা পেয়ে পরিবার পরিজন নিয়ে ভালোভাবে ঈদ করতে পারবে।

র‌্যাব-৭ এর অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মশিউর রহমান বিতরণকালে বলেন -মহেশখালীতে যারা আত্মসমর্পণ করে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছেন তাদেরকে ধন্যবাদ আর যারা বিপথে গেছে তাদের বিষয়ে জিরো টলারেন্সের ঘোষণা দেন।

মহেশখালী-কুতুবদিয়া এমপি আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক -জলদস্যুদের নাম পরিবর্ত করে আলোর পথে অভিযাত্রী হিসাবে ঘোষণা দিয়ে বলেন -র‌্যাব ও সরকার তাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে যে ভূমিকা পালন করেছে তা অতুলনীয়। আশা করি মহেশখালীতে অন্ধকার থেকে ফিরে আলোর পথে আসবে।


এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার র‌্যাব উইং কমান্ডার আজিম উদ্দীন, জলদস্যুদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে আত্মসমর্পণের মধ্যস্থতাকারী সাংবাদিক আকরাম হোসাইন। মহেশখালী থানার ওসি দিদারুল ফেরদৌসসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, কালারমার ছড়া ইউপি চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরীফ, মাতারবাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান মাঃ মোহাম্মদ উল্লাহ, স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীরা।

শিরোনাম ছিলো.. "মহেশখালীতে স্বাভাবিক জীবনে ফেরা দস্যু পরিবারে র‌্যাবের সহায়তা "

Post a Comment

Iklan Atas Artikel

Iklan Tengah Artikel 1

Iklan Tengah Artikel 2

Iklan Bawah Artikel