আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

কমেক’র প্যাথলজি ও কেভিড ১৯ স্যাম্পল সেন্টারের ইনচার্জ মহেশখালীর রিটন বড়ুয়া - মহেশখালীর সব খবর

⬤ আমাদের নতুন ওয়েবসাইটে স্বাগতম। ⬤ আমাদের ওয়েবসাইট www.moheshkhalirsobkhabor.com ⬤ ফেসবুক ফেইজ www.facebook.com/m.sobkhabor ⬤ ইউটিউব চ্যানেল www.YouTube.com/Sobkhabor24x7 ⬤ ফেসবুক গ্রুপ www.facebook.com/groups/m.sobkhabor ⬤

কমেক’র প্যাথলজি ও কেভিড ১৯ স্যাম্পল সেন্টারের ইনচার্জ মহেশখালীর রিটন বড়ুয়া


রকিয়ত উল্লাহ।।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্যাথলজি বিভাগ ও কেভিড ১৯ এর স্যাম্পল সেন্টারের ইনচার্জ হিসাবে দায়িত্ব পেয়েছেন মহেশখালীর সন্তান রিটন কুমার বড়ুয়া। আজ কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক(ভারপ্রাপ্ত) ডা: রফিক উস ছালেহীন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে রিটন কুমার বড়ুয়াকে এই দায়িত্ব দেওয়া হয়। 

করোনা কালীন গত এপ্রিল থেকে ভয়াবহ কোভিড-১৯এ যখন জেলা বেশামাল তখন করোনা রোগী তো দূরের কথা কেউ দেশের ভিন্ন জেলা থেকে আসলেও ছুঁয়ে তো দেখে না সেখান করোনার উপসর্গ রোগী থেকে স্যাম্পল সংগ্রহ করে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেবা প্রদান করেছেন। তার কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ  তাকে প্যাথলজি বিভাগ ও স্যাম্পল কালেকশন সেন্টারের ইনচার্জ হিসাবে নতুন দায়িত্ব দেওয়া হয়।

 নতুন দায়িত্ব প্রাপ্ত কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের টেকনোলজিষ্ট রিটন বড়ুয়ার কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি আমার দায়িত্ব পালন করেছি, রোগীদের সর্বাত্মক সেবা করার চেষ্টা করেছি।হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাকে যে নতুন দায়িত্ব দিয়েছে তা পালনের চেষ্টা করবো। এবং সকলের সহযোগিতা কামানা করেন।

রিটন কুমার বড়ুয়া ২০০৮ সালে  মহেশখালী সদর হাসপাতালে ল্যাব টেকনোলজিষ্ট হিসাবে কর্মজীবন শুরু করে ২০১১ সাল পর্যন্ত সেখানে কর্মরত ছিলেন । পরে কক্সবাজার মেডিকেল হাসপাতালে বদলী হয়ে সেখানে সুনামের সাথে এতোদিন  কাজ করে আসছিল। 

রিটন বড়ুয়া মহেশখালীর কালারমার ছড়া ইউনিয়নের উত্তর নলবিলার শৈলেন্দ্র বড়ুয়া ও কায়াপতি বড়ুয়ার ৫ম সন্তান। বর্তমানে তার সহধর্মিণী কোভিড ১৯ ডেডিকেটেড হাসপাতালে কর্মরত থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএসসি ইন নার্সিং কোর্সে অধ্যয়নরত আছে।

No comments

Powered by Blogger.