স্লোগানে মুখরিত মাতারবাড়ি, ভালোবাসার ঋণ শোধের সুযোগ চাইলেন ছমি উদ্দিন


অসীম দাশ।।

“আপনারা আজ আমাকে যে ভালোবাসা দিয়েছেন; তা ভুলবার মতো নই। ভালোবাসার এই ঋণ শোধ করার একটা সুযোগ আমি চাই। আপনারা আমাকে নিশ্চই সেই সুযোগ দিবেন।”- এভাবেই গতকাল গণসংযোগত্তোর এক সমাবেশে কথা বলেন মাতারবাড়ি ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি জিএম ছমি উদ্দীন।

দীর্ঘদিন আওয়ামীলীগের রাজনীতির সাথে জড়িত  জি.এম ছমি উদ্দীন মাতারবাড়ী ইউনিয়নে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশি চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসেবে মাতারবাড়ীর সর্বত্র প্রচার প্রচারণায় সরগরম করে তুলেছে তার সমর্থক ও সাধারণ ভোটারেরা।

গতকাল ২৭ ডিসেম্বর (রবিবার) বিকাল ২টা হতে মাতারবাড়ির পুরান বাজার মজিদিয়া মাদ্রাসার গেইট থেকে তার এই গণসংযোগ শুরু হয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে হাজার হাজার কর্মী-সমর্থক  অংশ নেয় এতে।  আওয়ামী লীগের অঙ্গ সহযোগী সংগঠন ছাত্রলীগ, যুবলীগ, শ্রমিকলীগ, সেচ্ছাসেবক লীগ, মৎস্যজীবী লীগ, শেখ রাসেল জাতীয় শিশু কিশোর পরিষদসহ, এলাকার যুবসমাজ, ছাত্রসমাজ, এবং মুরব্বিসমাজেরও প্রায় ২-৩ হাজার জনতা সেখানে যোগ দিতে দেখা গেছে।  

“মাতারবাড়ীর ঘাঁটি - ছমি উদ্দিন ভাইয়ের ঘাঁটি, ছমি উদ্দিন ভাইয়ের দু’নয়ন-মাতারবাড়ীর উন্নয়ন।”- এমন সব স্লোগানে মুর্হতেই সেই সংযোগ পরিণত হয় জনসমুদ্রে।

মাতারবাড়ির পুরান বাজার থেকে শুরু হওয়া এই গণসংযোগ হংস মিয়াজির পাড়া , উত্তর সরদার পাড়া , দক্ষিণ সরদার পাড়া , উত্তর সাইরার ডেইল , দক্ষিণ সাইরার ডেইল, মগডেইল ও বৃহত্তম মাইজ পাড়া হয়ে ফের পুরান বাজার এসে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে শেষ হয়।

উল্লেখ্য যে, আলহাজ্ব জিএম ছমি উদ্দিন (১৯৮৯) সালে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, মাতারবাড়ী ইউনিয়ন শাখার সহ-সভাপতি, (১৯৯০-৯১) সালে চট্টগ্রাম ওমর গণি এম.ই.এস কলেজের সদস্য, (২০০০-২০০৩) সালে মাতারবাড়ী ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি, (২০০৩-২০০৯) সালে মহেশখালী উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছেন। সর্বশেষ তিনি ২০১২ সাল থেকে মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য  হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।


Post a Comment

Previous Post Next Post