-->
পুলিশ সুপারের বক্তব্যের কড়া জবাব রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের

পুলিশ সুপারের বক্তব্যের কড়া জবাব রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের


প্রেস বিজ্ঞপ্তি।।

রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজার এর সাধারণ সম্পাদক ওসমান গণি’কে নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপারের করা মন্তব্যকে দু:খজনক আখ্য দিয়ে তার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের নেতৃবৃন্দরা। বুধবার (৭ এপ্রিল) বিকালে রিপোর্টার্স ইউনিটি কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত জরুরী সভায় এই প্রতিবাদ ও নিন্দা জানানো হয়।

সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, পুলিশ সুপার ওই সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিক নামধারী জনৈক ওসমান গণি বলে হেয় প্রতিপন্ন করে বক্তব্য দিয়েছেন। এতে সাংবাদিকদের সম্পর্কে মনগড়া বক্তব্য উপস্থাপন করা হয়। যা সত্যিই দুঃখজনক। একজন পদস্থ কর্মকর্তার এমন বক্তব্য সাংবাদিকদের মনে দাগ কেটেছে।

বক্তারা বলেন, মো. ওসমান গণি একজন পেশাদার মাঠ পর্যায়ের সাংবাদিক। তিনি দীর্ঘদিন দৈনিক আপনকণ্ঠে পেশাদারিত্বের সাথে কাজ করেছেন। বর্তমানে কক্সবাজারের বহুল প্রচারিত দৈনিক আজকের কক্সবাজার বার্তার প্রধান সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া তিনি কক্সবাজারের তরুণ সাংবাদিকদের প্রাণের সংগঠন রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজার এর নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক। তাকে নিয়ে অযাচিত মন্তব্য উদ্বেগজনক।

সভায় বক্তারা আরও বলেন, পুলিশ ও সাংবাদিক দেশ এবং জাতির জন্য নিঃস্বার্থভাবে কাজ করে। পেশাগত দায়িত্ব পালনে একে অপরের পরিপূরক। মূলতঃ মামুনুল হক ইস্যুতে পৌর আওয়ামী লীগ নেতা জাফর আলম উগ্র ধর্মান্ধদের হুমকি ও হামলার শিকার হয়েছে শুনে বিষয়টি নিয়ে তাকে সহযোগিতা করতে ওসমান গণি থানায় গিয়েছিলো। এটা কি তার অপরাধ? কিন্তু সংবাদ সম্মেলনে ওসমান গনিকে দালালের মতো করে উপস্থাপন করলেন পুলিশ সুপার কক্সবাজার। এরমধ্য দিয়ে সাংবাদিকদের মর্যাদাকে পদাঘাত করেছেন তিনি। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে যদি এ বক্তব্য প্রত্যাহার না করা হয় তবে সাংবাদিকদের মর্যাদা রক্ষায় জেলা পুলিশের সংবাদ বর্জনসহ যে কোনো সিদ্ধান্ত গ্রহণে বাধ্য থাকবো।

নেতৃবৃন্দরা বলেন, সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মুনীর উল গীয়াস যোগদানের পর থেকে কোন ভাবে সাংবাদিকদের তথ্য দিয়ে সহযোগীতা করেনি। সাংবাদিক নামধারী ধর্মান্ধরা পুলিশ সুপারের বরাত দিয়ে সংবাদ পরিবেশন করছেন, তারাই আমাদের আদর্শিক শত্রুতার সুযোগ নিচ্ছেন। তাদেরও সহমর্মিতা নিয়ে বলি স্বাধীনতাবিরোধী দলীয় এজেন্ডা থেকে বেরিয়ে সাংবাদিক হোন, না হয় পরিণাম শুভ হবে না। পাশাপাশি সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাংবাদিকদের সাথে ভদ্রতা সূলভ আচরণ ও তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করবেন এমন প্রত্যাশা করতেই পারি।

সভায় বক্তব্য রাখেন রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের সভাপতি এইচএম নজরুল ইসলাম, সহ সভাপতি সিরাজুল ইসলাম, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক তারেকুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মরিয়ম নুপুর, দপ্তর সম্পাদক অজিত হিমু, অর্থ সম্পাদক মোঃ ফরিদ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আশরাফুল হাসান রিশাদ তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক সানজিদুল ইসলাম সজিব,ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক সাকিবুর রহমান, আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক ফয়সাল রিয়াদ, নারী বিষয়ক সম্পাদক জেসিয়া, কার্যনির্বাহী সদস্য ইব্রাহীম আজাদ বাবু, নুরুল হোসেন, মিছবাহ উদ্দিন প্রমুখ।

শিরোনাম ছিলো.. "পুলিশ সুপারের বক্তব্যের কড়া জবাব রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের"

Post a Comment

Iklan Atas Artikel

Iklan Tengah Artikel 1

Iklan Tengah Artikel 2

Iklan Bawah Artikel