আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

মাতারবাড়ির ঘের মালিকরা আতঙ্কে, চাঁদা না দিলে ফার্মঘোনা ডাকাতির হুমকি মাস্তান গ্রুপের - মহেশখালীর সব খবর

মাতারবাড়ির ঘের মালিকরা আতঙ্কে, চাঁদা না দিলে ফার্মঘোনা ডাকাতির হুমকি মাস্তান গ্রুপের


বার্তা পরিবেশক।।
মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ি ইউনিয়নের উত্তর পাশে চিংড়িঘেরে ডাকাতদলের অত্যাচারে দিশাহারা হয়ে পড়েছর ঘের মালিকরা। চিংড়িঘেরগুলোতে মাছ ধরার সময় (অমবস্যা ও পূর্ণিমার আগে-পরে) পর্যায়ক্রমে ডাকাতি করার হুমকি দিয়েছে পাশ্ববর্তী পেকুয়ার উজানটিয়া ইউনিয়নের একটি মাস্তান গ্রুপ। পেকুয়া ৯ নম্বর ওয়ার্ড করিয়াদিয়া গ্রামের বহু মামলার আসামি নুরুছফার পুত্র শাহাজান ডাকাতই এ গ্রুপের প্রধান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় উজানটিয়ার  শাহাজান ডাকাত বাহিনীর নেতৃত্বে বিভিন্ন ঘেরে একের পর এক ডাকাতির ঘটনা ঘটে আসছে বিভিন্ন সময়।

সম্প্রতি বাহিনীর প্রধান শাহাজান মাতারবাড়ি ১৮ দোনা ফার্মঘোনা মালিকদের কাছে মোবাইলে মোটা অঙ্কের চাঁদাদাবি করে।  চাঁদা না দিলে ঘের ডাকাতির হুমকি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ঘের মালিকরা। এছাড়া ও মাছ ধরার ভরা মৌসুমে সমুদ্র উপকূলে দাবিয়ে বেড়াচ্ছে এ দস্যু বাহিনীর সদস্যরা। -অভিযোগ সংশ্লিষ্টদের।

মাতারবাড়ি ফার্মঘোনার পরিচালক মোহাম্মদ কাউছার জানান -শাহাজান বাহিনীর অত্যাচারে আমরাসহ পাশ্ববর্তী ঘেরে মাছ চাষ করতে পারছি না। তারা চাঁদা না দিলে মারধর করে প্রতি চিংড়ি প্রকল্প ডাকাতি করে মাছ লুট করে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছে। প্রতিবছর চিংড়ির মৌসুম শুরু হলে ডাকাতি শুরু হয়।'

এ ব্যাপারে মহেশখালী থানার ওসি মোহাম্মদ আব্দুল হাই বলেন, মাছ চাষিরা কারোর নাম উল্লেখ করে থানায় অভিযোগ করেনি। মৌসুমী ডাকাতদের কথা শুনেছি। অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
রকিয়ত উল্লাহ//

No comments

Powered by Blogger.