আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

মহেশখালী থেকে ৫ জলদুস্য আটক, অস্ত্র উদ্ধার - মহেশখালীর সব খবর

মহেশখালী থেকে ৫ জলদুস্য আটক, অস্ত্র উদ্ধার


রকিয়ত উল্লাহ।।
বঙ্গোপসাগরে মহেশখালী-সোনাদিয়া চ্যানেলে অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ দুই জলদস্যুকে আটক করে র‍্যাব-১৫। স্থানীয়দের হাতে আটক হয়েছে আরও ৩ জন। সব দস্যুরাই কুতুবদিয়ার বাসিন্দা। -তথ্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর।

রবিবার (৮আগস্ট) দিবাগত রাতে মহেশখালীর সোনাদিয়া প্যারাবনে জলদুস্যরা অবস্থানের খবর পেলে অভিযানে নামে র‍্যাব। এসময় র‍্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় কুতুবদিয়া উত্তর ধুরুং ইউনিয়নের নাজের হোসেনের ছেলে মো. রাশেদ ও আবু তৈয়বের ছেলে মো. মিজানকে আটক করতে সক্ষম হয়। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৩টি দেশিয় অস্ত্র ও ৫রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করে র‌্যাব।

বিষয়টি নিশ্চিত করে র‍্যাব-১৫ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার আব্দুল্লাহ মোহাম্মদ শেখ সাদী জানান, বঙ্গোপসাগরে টেকনাফ শাপলাপুরের পশ্চিমে সমুদ্রের গভীরে মাছ ধরার ট্রলার, মাছ, জাল সহ ৫০জন জেলেকে আটকে রেখে মুক্তিপণ দাবি করে জলদস্যুরা। এরই সূত্র ধরে অভিযান চালিয়ে সোনাদিয়া চ্যানেল থেকে দুজন জলদস্যুকে আটক করতে সক্ষম হয়।

এর আগে একই দিন সকালে ১১টায় উপজেলার কুতুবজোমের তাজিয়াকাটায় স্থানীয়রা ৩ জলদুস্যকে আটক করে পুলিশে দেন। আটককৃত হলেন, কুতুবদিয়ার উপজেলার উত্তর ধুরুং নাথপাড়ার বাদশা মিয়ার পূত্র আনিসুল ইসলাম ছোটন(৩৪), দক্ষিণ ধুরুং অলি পাড়ার আহমদ ছৈয়দের পূত্র আজিজুর রহমান(৩৭) ও মুসা সিকদার পাড়ার মঞ্জুর আলমের পূত্র রায়হান(৩১)। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা আছে বলে জানান মহেশখালী-কুতুবদিয়ার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার(সার্কেল) জাহেদুল ইসলাম।

তিনি আরও বলেন -সাগরে ইদানীং জলদুস্যের উৎপাত বৃদ্ধি পেয়েছে,অনেকেই বোটের মালিক থেকে মুক্তিপন আদায় করে। তাদের বিরুদ্ধে কোস্টগার্ড সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক অভিযান অব্যহত আছে।

এদিকে কুতুবদিয়া থেকে জলদস্যুদের সহয়তা করার অভিযোগে আরও দুই জন কোস্টগার্ডের হাতে আটক হয়েছে বলে খবর পাওয়া যাচ্ছে।

No comments

Powered by Blogger.