আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

মহেশখালীতে প্রথম ধাপে 'বীর নিবাস' পাচ্ছেন ৩ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার - মহেশখালীর সব খবর

মহেশখালীতে প্রথম ধাপে 'বীর নিবাস' পাচ্ছেন ৩ মুক্তিযোদ্ধা পরিবার


সংবাদদাতা।। মহেশখালীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের স্বপ্নের বাড়ি আবাসন নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় আধুনিক মানের বীর নিবাস পাচ্ছেন তিন অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবার।।

উপজেল নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা, বীরাঙ্গনা, শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা, তাদের বিধবা স্ত্রী ও সন্তানদের বীর নিবাস নামে ঘর উপহার হিসেবে প্রদানের সিদ্ধান্ত নেন সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় মহেশখালীতে এ প্রকল্পের আওতায় তিনটি ঘর বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

ইতোমধ্যে বীর নিবাস গৃহ নির্মাণে জমি সরেজমিনে পরিদর্শন করেছেন উপজেলা প্রশাসনের একটি ইউনিট। এ সময় বীর মুক্তিযোদ্ধা সালেহ আহমদসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পাওয়া অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা হলেন-মহেশখালী পৌরসভার ডাক বাংলো এলাকার সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ছালেহ আহমদ, ছোট মহেশখালী ইউনিয়নের নলবিলা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম কালা মিয়ার সহধর্মনী আমেনা খাতুন ও শাপলাপুর ইউনিয়নের পশ্চিম পাড়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম এম নুরুল উদ্দিন হেলালী সহধর্মনী খালেদা আমিন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা গেছে, অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা, বীরাঙ্গনা ও প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধার বিধবা স্ত্রী বা সন্তানদের আবাসন সুবিধা প্রদানের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয় আবাসন নির্মাণ প্রকল্পের আওতায় ২০২১-২২ অর্থবছরে মহেশখালীতে মুজিববর্ষে প্রথম ধাপে ৩জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে ৫ শতাংশ জমির উপর বীর নিবাস নির্মাণ করে দেওয়া হবে। প্রতিটি বীর নিবাস এর জন্য খরচ হবে ১৩ লাখ ৪৩ হাজার ৬১৮ টাকা। এ হিসেবে মহেশখালীতে ৩টি নিবাসের জন্য ৪০ লাখ ৩০ হাজার ৮৫৪ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। ব্রিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে আধুনিক মানের একতলা বীর নিবাস নির্মাণ হবে। এতে বীর মুক্তিযোদ্ধারা দুটি বেডরুম, একটি ডাইনিং ও লিভিং রুম, দুটি টয়লেট ও একটি কিচেন এর সুযোগ সুবিধা পাবেন।

এইচকে/টিআর//

No comments

Powered by Blogger.