কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারী গোরকঘাটা বাজার বণিক কল্যাণ সমিতি ব্যবসায়ীদের

আ.ন,ম হাসান
মহেশখালী পৌরসভার ব্যস্থতম বাণিজ্যিক এলাকা গোরকঘাটা বাজারে পণ্য বিক্রি করতে আনার সময় সড়কের ছোট মহেশখালী অংশে ব্যবসায়ীদের বাঁধা দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গতকাল এরকম পান বিক্রি করতে আনার সময় একাধিক ব্যবসায়ীতে মারধর করে পণ্য লুটপাট করা হয়েছে। দীর্ঘদিন থেকে এই অবস্থা চলছে বলে অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করেছেন গোরকঘাটা বাজার বণিক কল্যাণ সমিতি। তারা দ্রুত এই অবস্থার প্রতিকার ও দোষীদের গ্রেফতার দাবী করেন। দ্রুত এর প্রতিকার না হলে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দিয়েছেন বাজারের ব্যবসায়ী নেতারা। গতকাল সন্ধ্যায় গোরকঘাটা বাজারস্থ সমিতির কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেললে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সমিতির আহ্বায়ক কায়ছার আহমদ। এসময় উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম-আহ্বায়ক নুরুল আলম। অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সমিতির কর্মকর্তা সরওয়ার কামাল, সিরাজুল ইসলাম, রেজাউল করিম, হাবিব উল্লাহ, নুরুল আলম সৌদাগর, মোঃ ফয়সাল, আরফান উল্লাহ, মোঃ রিদোয়ান ও নির্মল দত্ত। সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয় -ছোট মহেশখালীর সোনমিয়া মেম্বার, শুক্কুর সওদাগর, মান্নান মেম্বার ও আয়ুব খানের নেতৃত্বে এক দল লোক প্রতিনিয়ত শাপলাপুর ও ছোট মহেশখালী এলাকা থেকে গোরকঘাটা বাজারে ব্যবসায়ীরা পণ্য বিক্রি করতে আসার সময় বাঁধাদান করে আসছিল। সম্প্রতি শাপলাপুরের স্থানীয় ব্যবসায়ী মোঃ ফরিদ, আব্দুর রহিম ও ফরিদ মিয়ার কাছ থেকে অন্ততঃ ৭১ হাজার টাকা লুট করে নেওয়া হয়। এসব ব্যবসায়ীরা গোরকঘাটা আসার সময় ছোট মহেশখালীতে তাদের গতিরোধ করে এসব টাকা লুট করে নেওয়া হয় বলে ক্ষতিগ্রস্তদের বরাত দিয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়। এদিকে গতকাল ছিল গোরকঘাটা বাজারে নির্ধারিত পান বিক্রির হাট। সকালের দিকে ছোট মহেশখালী ও শাপলাপুর এলাকার ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন বাহনযোগে গোরকঘাটা বাজারে বিক্রির জন্য পান নিয়ে আসার সময় ছোট মহেশখালী বাজার এলাকায় তাদেরকে একের পর এর গতিরোধ করা হয়। এক পর্যায়ে ব্যবসায়ীদের মারধর করে লুট করে নেওয়া হয় বিক্রির জন্য প্রস্তুত করে আনা পানের ঝুড়িও। ভাংচূর করা হয় পানের ঝুড়ি বহনকারী গাড়ি। এসময় গাড়ির ড্রাইভার ও হেল্ফারদের মারধর করা হয় বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ তোলা হয়। ছোট মহেশখালীর ব্যবসায়ী ছালেহ আহমদ, শাপলাপুরের অমির উদ্দিন ও ষাইটমারার নাছির উদ্দিনসহ অনেকেই অভিযোগ করেন দীর্ঘদিন থেকে গোরকঘাটা বাজারে পান বিক্রি করতে না আনার জন্য উল্লেখিত লোকজন তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করে আসছিল। এনিয়ে বিভিন্ন সময় তাদের উপর হামলা ও লুটপাট চালানো হলেও গতকাল তাদের উপর বেপরোয়া আচরণ করা হয়। এনিয়ে তারা দ্রুত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কমানা করেন। এদিকে সংবাদ সম্মেলনে ব্যবসায়ী নেতারা বলেন -আজকের মধ্যে এনিয়ে থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে। সাধারণ ব্যবসায়ীদের উপর হামলাকারীরা দ্রুত গ্রেফতার না হলে এনিয়ে ব্যবসায়ী সমাজ সম্মিলিত ভাবে আন্দোলনে নামবে বলে কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করা হয়।


শেয়ার:

মন্তব্য দিন: