কক্সবাজারের উপকূলীয় সোনাদিয়া এলাকার দস্যু সরদার ফারুককে অবশেষে বন্দুক ও গুলিসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সোনাদিয়ার প্যারাবন এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তার কাছ থেকে ৩টি বন্দুক, ১টি রাম দা ও ৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

মহেশখালী থানার অফিসার ইন-চার্জ(ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান -মহেশখালী উপজেলাধীন সোনাদিয়া এলাকার  জলদস্যু নেতা মোহাম্মদ ফারুখ(২৮) দীর্ঘ দিন থেকে সমুদ্রে জলদস্যুতা করে আসছিল। বিভিন্ন সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাকে গ্রেফতার করতে অভিযান চালিয়েও তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি। সোমবার সকালে সোনাদিয়ায় প্যারাবন এলাকায় এ দস্যু সরদার অবস্থান করছে বলে খবর পায় পুলিশ। এ সময় দ্রুত ওই এলাকায় অভিযান চালানো হয়।

মহেশখালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সঞ্জীব দত্ত জানান -সকালে এস এসআই রাজু আহমদ গাজীর নেতৃত্বে পুলিশের একটি ইউনিট প্যারাবনের ভেতর থেকে তাকে গ্রেফতার করে। এসময় তার কাছ থেকে একটি দোনলা বন্দুক, একটি লম্বা বন্দুক, একটি এলজি, একটি রাম দা ও ৫ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। তার বিরুদ্ধে ডজনখানেক মামলা রয়েছে এবং ৮ টি মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে বলে পুলিশ জানায়। ফারুখ সোনাদিয়া পূর্ব পাড়া এলাকার মোজাফ্ফর আহমদের পুত্র। এ নিয়ে পুলিশ বাদী হয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানাগেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে -ফারুখ আন্তঃজেলা দস্যু দলের একজন সক্রিয় সদস্য। তার নেতৃত্বে একটি জণদস্যু বাহিনী সমুদ্রে ধারাবাহিক ভাবে তান্ডব চালিয়ে আসছিল। সমুদ্রের সোনাদিয়া, কুতুবদিয়া ও বাঁশখালী পয়েন্টে এ দস্যু বাহিনীর অত্যচারে জেলেরা অতিষ্ট ছিল।


















শেয়ার:

মন্তব্য দিন:

0 comments so far,add yours