ইঞ্জিনিয়ার ইসমত আরা ইসমু
আমিনুল হক।।  বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক, ত্রাণ ও সমাজ কল্যান উপ-কমিটির সদস্য,  প্রতিনিয়ত জনপ্রিয় হয়ে ওঠা মহেশখালী-কুতুবদিয়ার দুই দ্বীপাঞ্চলের নারীদের রাজনীতির পথ  উম্মোচনকারী মুক্তিযোদ্ধা কন্যা ইঞ্জিনিয়ার ইসমত আরা ইসমু বলেছেন, আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহেশখালী- কুতুবদিয়ার নারীরা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রতীক, মাদার অব হিউম্যানিটি জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতীক, উন্নয়নের প্রতীক নৌকায় রায় দিয়ে ভোটের বিপ্লব ঘটাবে ইনশাল্লাহ। মহেশখালী-কুতুবদিয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিকতায় হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে বিভিন্ন মেগা প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়নাধীন রয়েছে।

উন্নয়নের কথা চিন্তা করতে হলে অবশ্যই নৌকা মার্কায় ভোট দিতে হবে। উন্নয়নের জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই বলে জানিয়েছেন আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী ইঞ্জিনিয়ার ইসমু। এদিকে মহেশখালী-কুতুবদিয়ার নারীরা মনে করেন,আমাদের দেশের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী একজন মহিলা, সংসদের স্পীকার একজন মহিলা, বিরোধী দলের প্রধান একজন মহিলা। তাই আগামী নির্বাচনে মহেশখালী-কুতুবদিয়ার আসনেও একজন মহিলা নির্বাচন করলে সমস্যা নেই। নারী নেত্রী ইঞ্জিনিয়ার ইসমু মহেশখালী-কুতুবদিয়ার নারীদের রাজনীতির চোখ খুলে দিয়েছেন। দলের হাই কমান্ডের সিদ্ধান্তে যদি জেলার অন্যতম  মহেশখালী-কুতুবদিয়া আসনে ইঞ্জিনিয়ার ইসমুকে মনোনয়ন দেওয়া নাও হয় তাহলে সংরক্ষিত মহিলা আসনে হলেও তাকে দেখতে চান দুই দ্বীপাঞ্চলের নারীরা। তারা আশা করেন, ইঞ্জিনিয়ার ইসমুর দ্বারাই সম্ভব মহেশখালী-কুতুবদিয়ায় নারী জাগরন সৃষ্টি করা। 
নারীরাও যে কোন অংশে কম নয় তা দেখিয়ে দিলেন মহেশখালীর অবহেলিত ধলঘাটায় জন্ম নেওয়া মুক্তিযোদ্ধা কন্যা ইঞ্জিনিয়ার ইসমু। মহেশখালীর অন্যান্য এলাকার মতো মাতারবাড়ি, ধলঘাটা, কালারমারছড়া, হোয়ানক ও শাপলাপুর ইউনিয়ন এলাকায় এখন জনপ্রিয় একটি নাম ইঞ্জিনিয়ার ইসমু।

শেয়ার:

মন্তব্য দিন:

0 comments so far,add yours