-->
এই অর্জনই বা কম কীসে ?

এই অর্জনই বা কম কীসে ?

২৬ জুলাই নিজের ব্যক্তিগত আইডি থেকে একটি পোস্টে মহেশখালীর সব খবর থেকে বিভিন্ন মাধ্যম কর্তৃক নিউজ বা কনটেন্ট চুরি (অনুমতি ছাড়া ব্যবহার) হয়ে যাওয়ার বিষয়টি শেয়ার করেছিলাম। সে প্রসঙ্গে পাঠকদের আরও কিছু তথ্য দিতেই এই লেখা। মহেশখালীর সব খবর  মহেশখালীর সবচে’ পাঠকপ্রিয় ও দায়িত্বশীল অনলাইন দৈনিক। তাই স্বভাবতই আমাদের পেইজে-সাইটে চোখে রাখেন এই অঞ্চলের সাধারণ জনগণ থেকে শুরু করে- জনপ্রতিনিধি-প্রশাসনিক কর্তা...এমনকি সংবাদকর্মীরাও।
মহেশখালীর সব খবর থেকে ওইদি যে নিউজটি চট্টগ্রামের একটি মেইনলাইন দৈনিকসহ বেশ কিছু অনলাইন মাধ্যম অনুমতি ব্যতিরেকেই চুরি বা ব্যবহার করেছে, এটা সামান্য একটা উদাহরণ মাত্র। নতুন কিছু নয়। আপনারা জেনে অবাক হবেন যে, গত এক মাসে আমাদের সাইটের অর্ধশত কনটেন্ট চুরি করেছে অনেক পত্রিকা। এ তালিকায় অনেক নামি দামী পত্রিকাও আছে। তার প্রমাণ
মহেশখালীর সব খবর ‘র হাতে রয়েছে। অনেকক্ষেত্রেই দেখা গেছে এসব নিউজ রাইট না মেনে কপি করছে পত্রিকা গুলোর স্থানীয় সংবাদদাতা প্রতিনিধিরাই। যেটা খুবই দুঃখজনক। তারা কপি করাকে একটা মৌলিক অধিকার মনে করেই করুক কিংবা অন্যকোনো কারণে করুক -আমরা মনেকরি এই বিষয়ে কথা বলাটাও আমাদের জন্য বিব্রতকর। আমরা মনে করছি যথেষ্ট হয়েছে এই কপি। এবার আইনি প্রক্রিয়ায় যাওয়া বাকি।
তবে সে যাইহোক আশার কথা এই যে এসব কপিবাজ সংবাদ প্রতিনিধিদের কাছ থেকেও আমরা স্বপ্ন দেখছি। পাঠকদের পাশাপাশি মহেশখালীর অনেক সংবাদকর্মীরাও যে নিউজের জন্য মহেশখালীর সব খবর ডট কমের দিকেই তাকিয়ে থাকে এতে কোন সন্দেহ নেই। চোখ বন্ধ করেই তারা আমাদের দেয়া খবরে আস্থা রেখে মুহূর্তেই কপি করে নিজেদের হাউজে পাঠিয়ে দিচ্ছে আমাদের খবর। এতেই স্পষ্ট হয়ে যায় পাঠকদের একটা অংশজুড়েই রয়েছে তাদের উপস্থিতি। তাই আমরাও নির্দ্বিধায় বলি, মহেশখালীর সব খবরের দিকে শুধু এই অঞ্চলের সাধারণ জনগণই নয়, বরং তাকিয়ে থাকে অনেক সংবাদকর্মীরাও। এই অর্জনই বা কম কীসে ?

অসীম দাশ
সহ-সম্পাদক
মহেশখালীর সব খবর


Sub-editorial

শিরোনাম ছিলো.. "এই অর্জনই বা কম কীসে ?"

Post a Comment

Iklan Atas Artikel

Iklan Tengah Artikel 1

Iklan Tengah Artikel 2

Iklan Bawah Artikel