-->
অতিবৃষ্টির সময় পাহাড়ে বসবাস না করার আহ্বান মহেশখালীর প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের

অতিবৃষ্টির সময় পাহাড়ে বসবাস না করার আহ্বান মহেশখালীর প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের


নিজস্ব বার্তা পরিবেশক।।
বর্তামানে বৃষ্টির মৌসুম চলছে। কখনও কখনও অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত হচ্ছে। অতিবৃষ্টির সময় পাহাড় ধ্বসের আশংকা রয়েছে। এ অবস্থায় মহেশখালীর উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারী লোকজনকে নিরাপদে সরে আসার আহ্বান জানানো হচ্ছে। একই আহ্বানে বিভিন্ন স্থানে মাইকিং করে লোকজনকে সচেতন করা হচ্ছে বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে।

ঢাকা আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে -পশ্চিমা লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন বাংলাদেশ এলাকায় অবস্থান করছে , এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে । এর প্রভাবে অস্থায়ী ভাবে দমকা হাওয়াসহ মাঝারি থেকে ভারি ধরণের বৃষ্টি ও বজ্রসহ বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে - মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে জুন-জুলাই মাস জুড়ে বৃষ্টিপাত হবে। এ সময় কখনও কখনও অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত হবে।

এদিকে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মাহফুজুর রহমান জানিয়েছেন -গত শুক্রবার থেকে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মহেশখালীর বিভিন্ন এলাকায় সচেতনতামূলক মাইকিং করা হচ্ছে, একই সাথে ইউনিয়ন পরিষদ এর মাধ্যমে লোকজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে আনার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তিনি পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারী লোকজনকে বৃষ্টির এই সময়ে নিরাপদ স্থানে সরে আসার আহ্বান জানান।

কালারমার ছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরীফ জানান -বৃষ্টির শুরুর দিক থেকে লোকজনকে পাহাড়ি এলাকা থেকে নিরাপদে সরিয়ে আনার নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়। প্রশাসন ও ইউনিয়ন পরিষদের বার্তাকে গুরুত্ব দিয়ে তিনি পাহাড়ে বসবাসকারী লোকজনকে নিরাপদে সরে আসার আহ্বান জানান।

শিরোনাম ছিলো.. "অতিবৃষ্টির সময় পাহাড়ে বসবাস না করার আহ্বান মহেশখালীর প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের"

Post a Comment

Iklan Atas Artikel

Iklan Tengah Artikel 1

Iklan Tengah Artikel 2

Iklan Bawah Artikel