আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

মহেশখালীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, কলেজছাত্রীসহ আহত একাধিক - মহেশখালীর সব খবর

মহেশখালীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষ, কলেজছাত্রীসহ আহত একাধিক


সংবাদদাতা প্রেরিত।।
মহেশখালীতে জমি নিয়ে রক্তক্ষয়ি সংঘাত হয়েছে এতে কলেজ ছাত্রীসহ ১১ জন নারী শিশু আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের হরিয়ারছড়া গ্রামে শনিবার সকাল ৭টায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

মহেশখালী থানায় দায়েরকৃত এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ছৈয়দ আহমেদ ও একই এলাকার সাহাব উদ্দিনদের সাথে ২১০ কড়া নাল জমি নিয়ে র্দীঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিলো। এই বিরোধের কারণে এই জমি দখলে নিতে এক পক্ষ ৩টি করে আদালতে মামলা দায়ের করেছে।

সর্বশেষ গতকাল শনিবার ভোরে এই জমি দখলে নিতে নুুরুল আলমের পুত্র সাহাব উদ্দিনের নেতৃত্বে সামসুল আলম, গুনু মিয়া, রশিদ মিয়া ছিয়দ মিয়াসহ ১০-১৫ জনের একদল অস্ত্রধারী বাহিনী ছৈয়দ আহমদদের উপর হামলা চালায়, এই হামলায় নারীসহ প্রায় ১১ জন আহত হন।

আহতরা হলেন, ফরুক আহমদের স্ত্রী জন্নাত বেগম (৪০), পুত্র জসিম উদ্দিন, ছৈয়দ আহমদের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে রোকেয়া আক্তার (২০), বঙ্গবন্ধু সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী শহিদা আক্তার(১৮),  আলী আহমদের মেয়ে ফাতেমা বেগম (১৬), মৃত আব্দুল কাদেরর পুত্র ছৈয়দ মাঝি (৬৫),  হাফেজ আহমদ (৪০),  আয়েরা বেগম (৫৫),  দিলোয়ারা বেগম (৪৫), আলী আহমদের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে  কুলছুমা বেগম (১৭), হাফেজ আহমদের স্ত্রী বুলু আক্তার(৩৬)।

ঘটনার পর আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে মহেশখালী হাসপাতালে নিয়ে আাসলে আহতদের মধ্যে কলেজ ছাত্রী কুলছুমাসহ ৬ জনের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় তাদের দ্রুত কক্সবাজার সদরে প্রেরণ করে মহেশখালী হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তারগণ।

এদিকে স্থানীয়রা জানান, হামলাকারীরা সুযোগ বুঝে জমির মালিকদের ঘরে পুুরুষ সদস্য না কারনে তারা মুলত জমি দখল করতে চায় এসময় মহিলা বাধা দিতে এলে তারা হামলায় বেশি আহত হয়।  এঘটনায় মহেশখালী থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে  বলে জানা গেছে।

মহেশখালী থানার এসআই আবু বক্কর জানান, ঘটনার পর খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার পর উভয় পক্ষকে শান্ত থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে এবং  অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

No comments

Powered by Blogger.