কক্সবাজার মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ি দাড়া খাল এলাকায় ২৭ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে ৮ টার দিকে পুলিশ-ডাকাত বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুলিশের ৪ জন এসআই আহত হয়েছে। আহত অবস্থায় গ্রেফতার হয়েছে উপকূলীয় এক শীর্ষ ডাকাত। উদ্ধার হয়েছে বিপুল অস্ত্র ও গুলি।

ঘটনাস্থল থেকে মহেশখালী থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান মহেশখালী সদর ও মাতারবাড়ি সংযোগ সড়কের দাড়া খাল এলাকায় দীর্ঘ দিন থেকে একটি শক্তিশালী ডাকাত সিন্ডিকেট তৎপরতা চালিয়ে আসছিল। সন্ধ্যা নামলেই সুযোগ বুঝে এরা সড়কে নেমে পড়ে। ২৭ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যার পর এলাকার এই ডাকাত চক্রটি সড়কে ডাকাতির জন্য নেমেছে এরকম খবর পেয়ে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সাদা পোশাকে ওই এলাকায় অবস্থান নেয়। পুলিশ ডাকাতদের চ্যালেঞ্জ করলে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ করে গুলি চালাতে থাকে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়ে। এক পর্যায়ে পুলিশ-ডাকাত বন্দুকযুদ্ধ লেগে যায়। একপর্যায়ে ডাকাতরা পিছু হটলে পুলিশ বেলাল উদ্দিন ওরফে ঝুনু ডাকাতকে গ্রেফতার করে। ঝুনু কালারমার ছড়া ইউনিয়নের উত্তর নলবিলা এলাকার জনৈক আব্দুল গণির পুত্র। সে তালিকাভুক্ত শীর্ষ ডাকাত বলে পুলিশ জানায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ৯ টি অস্ত্র, ৩০ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার করে। ওসি জানান বন্দুকযদ্ধের ঘটনায় পুলিশের তরফে ৩০ রাউন্ড ও সন্ত্রাসীরা ৩০-৩৫ রাউন্ড গুলি ছুড়ে। এঘটনায় মাতারবাড়ির ডাকাত শামসু, নুর ইসলামসহ অনেকে পালিয়ে গেছে বলে জানাগেছে। আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন এসআই মিনহাজ, এসআই জাহাঙ্গীর, এএসআই সঞ্জয় ও এসআই শাহআলম। রাতে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে রয়েছে। পুলিশের অপর একটি ইউনিট পলাতক ডাকাদের পাকড়াও করতে আশপাশের এলাকায় অভিযান চালাচ্ছে বলে জানাগেছে।
শেয়ার:

মন্তব্য দিন: