আবুল বশর পারভেজ  

মহেশখালীতে আগুনে  বাড়ী ধাঁনের গুদাম পুড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। একই সাথে এইচএসসি পরীক্ষার প্রবেশ পত্র পুড়ে গেছে।
ঘটনাটি ঘটেছে, উপজেলার বড় মহেশখালী ইউনিয়নের জাগিরা ঘোনা গ্রামে। ফায়ার সার্ভিসের মহেশখালী ইনচার্জ ধীমান বড়–য়া জানান, ৮ এপ্রিল রাত ১.১৫ মিনিটের সময় বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে  আবুল কালাম এর বাড়ী আগুনের সুত্রপাত হয়। এ সময় আগুনের লিলিহান শিখা মহুর্তের মধ্যে সর্বত্রে ছড়িয়ে পড়লে বাড়ীর মালা মাল ছাড়া বাড়ীর সাথেযুক্ত ২টি ধানের গুদাম আগুনে পুড়ে যায়। ২টি গুদামে ৪শত পাকাঁদান মজুদ ছিল বলে ক্ষতিগ্রস্ত বড়ির মালিক  ও প্রতিবেশীরা জানায়। আগুনের সংবাদ পেয়ে মহেশখালী ফায়ার সার্ভিসের একটি টিম দ্রুত আগুনের নিয়ন্ত্রন করে। পার্শ্বে পুকুর না থাকলে আরো ব্যাপক কাণতি ও প্রাণহানির ঘটনা ঘটতো। 

জাগিরা ঘোনা গ্রামে ৮টি কক্ষ বিশিষ্ট এ বাড়িটি ছিল মাটির তৈরী সর্ব বৃহত বাড়ী যে বাড়ীতে যৌথ ভাবে ৫টি পরিবারের অন্তত ২৮জন সদস্য বসবাস করতো। ফায়ার সার্ভিসের ষ্টেশন ইনচার্জ ধীমান বড়–য়া জানায়,  বাড়ীটতে লবন মাঠের পলেথিন, পাম্পমেশিন, টিভি ফ্রিজ, আসবাব পত্র ,নগদ ৩লক্ষ টাকা, ৮ ভরি স্বর্ণ, স্কুল মাদরাসায় পড়–য়া পরীক্ষর্থীর প্রবেশ পত্র, মার্কসী পড়ে প্রায় ৮লক্ষ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আবুল কালাম অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িটি পরিদর্শনে গিয়ে ক্ষতিগ্রস্তদের  সরকারী সহায়তার আশ্বাস দেন।  আগুনে পুড়ে ক্ষতি গ্রস্তবাড়ীর মালিকরা হলেন বড় মহেশখালী জাগিরাঘোনা গ্রামের মৃত সাহেব মিয়ার পুত্র আবুল কালাম, মনজুর আলম, জাফর আলম, আবুছৈয়দ ও ফরিদুল আল।
শেয়ার:

মন্তব্য দিন: