আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

মাতারবাড়ি বিদ্যুৎ প্রকল্পে স্থানীয়দের চাকরিচ্যুতি, সহিংসতার আশংকা - মহেশখালীর সব খবর

⬤ আমাদের নতুন ওয়েবসাইটে স্বাগতম। ⬤ আমাদের ওয়েবসাইট www.moheshkhalirsobkhabor.com ⬤ ফেসবুক ফেইজ www.facebook.com/m.sobkhabor ⬤ ইউটিউব চ্যানেল www.YouTube.com/Sobkhabor24x7 ⬤ ফেসবুক গ্রুপ www.facebook.com/groups/m.sobkhabor ⬤

মাতারবাড়ি বিদ্যুৎ প্রকল্পে স্থানীয়দের চাকরিচ্যুতি, সহিংসতার আশংকা

বার্তা পরিবেশক।।
মহেশখালীর মাতারবাড়ির কয়লা ভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে একটি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থার হয়ে বিভিন্ন পদে কর্মরত লোকজনকে অনৈতিক ভাবে চাকরিচ্যুতি করে ঢাকা থেকে লোক এনে নিয়োগ দেওয়ার ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়াগেছে। স্থানীয় একটি চক্র বড় অংকের টাকা  বিনিময়ে বিভিন্ন জনকে চাকরি দেওয়ার জন্য এ ষড়যন্ত্র করছে বলেও সূত্রে প্রকাশ। এনিয়ে প্রকল্প এলাকায় ওই উন্নয়ন সংস্থার হাউজে চরম অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে যে কোনো মুহূর্তে বড় ধরণের সহিংসতা সৃষ্টি হতে পারে বলে বলে অশংকা করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে চরম বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে বলেও জানাগেছে।

সূত্রের অভিযোগ থেকে জানাগেছে -উন্নয়ন সংস্থা হুন্দাইর কেটারিং নিয়ে ২ ব্যবসায়িক পার্টনার কসমস এবং আইটিএল এর স্টাফ এবং উভয় মালিক পক্ষের মধ্যে নিজেদের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে রশি টানাটানি চলছে। সংস্থার অভ্যন্তরে বিষয়টি জটিল আকার ধরণ করেছে। নিজেদের মধ্যে এমন বিশৃঙ্খলার জের ধরে কোম্পানীতে কর্মরত স্থানীয় বিভিন্ন লোকজনকে চাকরিহারা করার জন্যও ষড়যন্ত্র হচ্ছে বলে জানাগেছে। এর ধরে বিশৃঙ্খলার সুযোগ নিয়ে মাতারবাড়ির স্থানীয় এক শীর্ষ জনপ্রতিনিধি মোটা অংকের কমিশন বাণিজ্যের ইস্যু নিয়ে মাঠে নেমেছে। সংস্থার সাথে আঁতাত করে স্থানীয় লোকজনকে চাকরীচ্যুত করে ঢাকা থেকে জনবল এনে কর্মে নিয়োগ দেওয়ার পাঁয়তারা চলছে। বিষয়টি নিজেদের মধ্যে জানাজানি হলে এ নিয়ে বেশ উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। ইতোমধ্যে গত ৩০ অক্টোবর হাতাহাতির ঘটনাও ঘটেছে বলে জানাগেছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট অনেকেই অবগত আছেন। অশংকা করা হচ্ছে এ অবস্থা চলতে থাকলে যে কোনো সময় বড় ধরণের মারামারির ঘটনা ঘটতে পারে। নিজেদের মধ্যে এমন ঘটনা সমগ্র প্রকল্পে খারাপ প্রভাব ফেলেতে পারে বলেও আশংকা করা হচ্ছে। গত ১৯ মাস যাবত কসমসে এ কাজ করছে স্থানীয় এসব লোকজন। তারা শ্রম ও মেধা দিয়ে সংস্থাটিকে ওখানে দাঁড় করিয়েছে। অথচ কসমস কর্তৃক অন্ততঃ ১০ নিরীহ লোককে চাকরি চ্যুত হতে যাচ্ছে । এনিয়ে এলাকার সাংসদসহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন তারা।

No comments

Powered by Blogger.