আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

বড় মহেশখালীতে তুচ্ছ ঘটনায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ, নারীসহ আহত ১৩ - মহেশখালীর সব খবর

⬤ আমাদের নতুন ওয়েবসাইটে স্বাগতম। ⬤ আমাদের ওয়েবসাইট www.moheshkhalirsobkhabor.com ⬤ ফেসবুক ফেইজ www.facebook.com/m.sobkhabor ⬤ ইউটিউব চ্যানেল www.YouTube.com/Sobkhabor24x7 ⬤ ফেসবুক গ্রুপ www.facebook.com/groups/m.sobkhabor ⬤

বড় মহেশখালীতে তুচ্ছ ঘটনায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ, নারীসহ আহত ১৩

বড় মহেশখালীতে তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অন্ততঃ ১৩ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে একাধিক জনের অবস্থা গুরুতর। গতকাল বিকেলে বড় মহেশখালীর পশ্চিম ফকিরাঘোনা গ্রামে।

সূত্রের অভিযোগ থেকে জানাযায়, গতকাল দুপুরের দিকে পশ্চিম ফকিরাঘোনার চাঁনমিয়া পাড়া এলাকায় কতিপয় শিশু কর্তৃক খেলার ছলে বাড়ির চালে ঢিল মারা নিয়ে শিশুদের মাঝে ঝগড়া হয়। এনিয়ে স্থানীয় বাসিন্দা মোহাম্মদ শফী ও নুরুচ্ছফার লোকজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এ সময় এলাকার লোকজন এগিয়ে এলে উত্তেজনা থেমে যায়। এদিকে এ ঘটনার জের ধরে তাদের আত্মিয়-স্বজনের মধ্যে লোকজন জড়ো হয়। পরে আসরের নামাজের পরে শফীর লোকজন চাঁনমিয়া পাড়া মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে বের হওয়ার সময় পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালায় নুরুচ্ছফার লোকজন। এ সময় নুরুচ্ছফা, মিন্টু মেম্বার ও এহছানের নেতৃত্বে ১০-১৫ জনের একদল লোক বিভিন্ন অস্ত্র-শস্ত্র নিয়ে শফির লোকজনের উপর হামলা চালায়। হামলায় ৪ জনকে কুপিয়ে জখমসহ উভয় পক্ষে অন্ততঃ ১৩ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে আবুল কাসেম (২৮), মকবুল আহমদ (৭৫), মো. রফিক (৩৫) ও জাহা বকসু (৫৫) এর অবস্থা সংকটাপন্ন। তাদেরকে উদ্ধার করে প্রথমে মহেশখালী ও পরে কক্সবাজার হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। অহত অন্যরা হলেন রহিম বকসু(৫৭), ছৈয়দুর রহমান(৪০), শাহ আলম(৩২), আব্দুল মালেক(৪০), রবিউল আলম(৩২) ও খদিজা বেগম (৪০)সহ আরও ৩ জন রয়েছে। উভয় পক্ষের এসব লোকজনকে মহেশখালী হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

No comments

Powered by Blogger.