-->
মহেশখালীর ইউএনও'র নির্দেশে ৩দিন পর সড়ক থেকে ব্যারিকেড সরিয়ে নিয়েছে ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকেরা

মহেশখালীর ইউএনও'র নির্দেশে ৩দিন পর সড়ক থেকে ব্যারিকেড সরিয়ে নিয়েছে ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকেরা


রকিয়ত উল্লাহ।।।

মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মাহফুজুর রহমানের নির্দেশে নির্মাণাধীন সড়ক থেকে চতুর্থ বারের মত ব্যারিকেট সরিয়ে নিল ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকেরা । মহেশখালীর কালারমারছড়ার উত্তর নলবিলা (আফজলীয়া পাড়া) হইতে মাতারবাড়ী আলট্রা সুপার ক্রিটিক্যাল কোল-পাওয়ার প্রজেক্ট (RHD) সড়কে ব্যারিকেড দিয়ে কাজ বন্ধ রেখে স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগন ৪র্থ বারের মত প্রতিবাদ জানায় । সড়কে ব্যারিকেটের কারনে তিন দিন কাজ বন্ধ ছিল পুরো প্রজেক্টে । বিষয়টি মহেশখালীর (ইউএনও) মোঃ মাহফুজুর রহমান অবগত হলে (শুক্রবার) ১২ মার্চ বিকাল ৩টার সময় ঘটনা স্থলে এসে সড়কের উপর দেয়া ব্যারিকেট সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেন । এসময় (ইউএনও'র) নির্দেশ পেয়ে স্থানীয় গ্রাম পুলিশ সড়কের ব্যারিকেট গুলো সরিয়ে ফেলেন । পরে ইউএনও মোঃ মাহফুজুর রহমান (ইউনুছখালী - আফজলীয়া পাড়া) RHD অফিসের সম্মেলন কক্ষে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগনের সাথে তাৎক্ষণিক কথা বলেন । ইউএনও জমির মালিকদের উদ্দেশ্যে বলেন , ইতিমধ্যে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগন কে ডিসি অফিস থেকে চেক দেওয়া হচ্ছে । অভিযোগ না থাকলে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক সবাইকে চেক দেয়া হবে । অধিগ্রহণকৃত জমির উপর দায়ের করা মামলা গুলো আপনাদের নিজেদের মধ্যে মিলে যেতে না পারলে কাউকে চেক দেওয়া সম্ভব নয় বলেও জানান তিনি । কিন্তু এর ইস্যু নিয়ে ভবিষ্যতে আর কেউ উন্নয়ন কাজে বাঁধা গ্রস্ত করে সড়কে ব্যারিকেট দেওয়া যাবে বলেও জানিয়ে দেন । তবে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগন যাতে সহজে তাদের ক্ষতিপূরণের টাকা পায় এব্যাপারে সর্বাত্মক সহযোগীতারও আশ্বাস দেন (ইউএনও) মোঃ মাহফুজুর রহমান । এবিষয়ে ডিসি স্যার কেও অবহিত করা হবে বলে জানান তিনি । উল্লেখ্য ,কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া ইউনিয়নে RHD সড়ক নির্মাণে ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগন তাদের ক্ষতিপূরণের টাকার জন্য চতুর্থ বারের মত সড়কে ব্যারিকেট দিয়ে প্রতিবাদ জানান । এর আগেও স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগন তাদের ক্ষতিপূরণ না পাওয়ায় উক্ত সড়কে একই স্থানে তিন দফা ব্যারিকেট দিয়ে কাজ বন্ধ করে প্রতিবদ জানায় । প্রতিবারই মহেশখালীর (ইউএনও) ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরীফের আশ্বাসে সড়ক থেকে ব্যারিকেট তুলে নিতে বাধ্য হয় ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগন । সর্বশেষ গত ১০ মার্চ (বুধবার) ভোর ৬টার সময় স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগন তাদের ক্ষতিপূরণের টাকা না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে আবারো উক্ত নির্মাণাধীন সড়কে ব্যারিকেড দিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়া হয় । 

মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাহফুজুর রহমান ছাড়াও অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন , কালারমারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল কাসেম , ২নং ওয়ার্ড়ের ইউপি সদস্য আক্তারুজ্জামান বাবু , এডভোকেট মামুনুর রশিদ , মাওলানা মোবারক আহমদ , মোস্তফা কামাল সহ ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকগন ।

শিরোনাম ছিলো.. "মহেশখালীর ইউএনও'র নির্দেশে ৩দিন পর সড়ক থেকে ব্যারিকেড সরিয়ে নিয়েছে ক্ষতিগ্রস্থ জমির মালিকেরা"

Post a Comment

Iklan Atas Artikel

Iklan Tengah Artikel 1

Iklan Tengah Artikel 2

Iklan Bawah Artikel