কক্সবাজারের মহেশখালী পৌর সদরে একটি বিশাল মদের ডেরায় অভিযান চালিয়েছে পুলিশ। এসময় দু’শ বোতল ও এক হাজার লিটার তরল মদ উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার করা হয়েছে আস্তানাটির মালিক বিধু ভূষণ দেসহ ৫ জনকে।
মহেশখালী থানার অফিসার ইন-চার্জ প্রদীপ কুমার দাশ জানান পুলিশ নিজস্ব গোয়েন্দা সূত্রে নিশ্চিত হন যে মহেশখালী পৌর সদরের দিঘী পাড়া এলাকায় একটি বড় হিন্দু বাড়িতে গোপনে বিশাল মদের আস্তানা পরিচালিত হচ্ছে। এই আস্তানায় দেশীয় প্রযুক্তিতে বাংলা মদ উৎপাদন ও বিপণন হয়ে আসছিল। বার স্টাইলে এখানে বসেই মাদক গ্রহণ করে এলাকার দাগি সন্ত্রাসীসহ নানা অপরাধীরা। তাছাড়া এখানে উৎপাদিত মদ বোতলজাত করে মহেশখালীর বিভিন্ন স্থানে পাচার হয়ে আসছিল। এমন তথ্যে নিশ্চিত হয়ে ওসির নেতৃত্বে পুলিশের দু’টি ইউনিট গতকাল ৮ ফেব্রুয়ারি রাত ৮ টার দিকে ওই ডেরায় অভিযান শুরু করে। এসময় আস্তানার মালিক বিধু ভূষণ দেসহ ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়। ২শ বোতলসহ উদ্ধার করা হয় বিভিন্ন ব্যারেল ও কন্টিনারে সংরক্ষিত ১ হাজার লিটার তরল চোলাই মদ। আস্তানার মালিকসহ গ্রেফতারকৃত হল পৌরসভার পশ্চিম ঘোনা পাড়া কামাল পাশা, তাজিয়া কাটার লেদু মিয়া, খোন্দকার পাড়ার সোলতান ও তাজিয়া কাটার নুর মোহাম্মদ। গতকাল রাতেই এনিয়ে পুলিশ বাদী হয়ে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা করা হয় বলে ওসি জানিয়েছেন। এপ্রসঙ্গে মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আবুল কালাম জানান মাদকের কারণে মহেশখালীর যুবসমাজ ধ্বংস হচ্ছে। তিনি থানা পুলিশের এমন অভিযানকে অভিনন্দিত করেছেন। অভিযানে আরও অংশ নেন মহেশখালী থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হারুন, সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আব্দুস সালাম, সাইফুল ইসলাম ও আজিম।

ছবি: উদ্ধার হওয়া আংশিক মদের সাথে গ্রেফতার হওয়া লোকজন।
শেয়ার:

মন্তব্য দিন: