আমরা মহেশখালীর কথা বলি..

গোরাকঘাটা দক্ষিণ হিন্দুপাড়ায় তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম, থানায় মামলা - মহেশখালীর সব খবর

গোরাকঘাটা দক্ষিণ হিন্দুপাড়ায় তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম, থানায় মামলা

বার্তা পরিবেশক।। মহেশখালী পৌরসভার দক্ষিণ হিন্দু পাড়া এলাকায় পূর্ব-বিরোধের জের ধরে এক ব্যক্তিকে এলোপাথাড়ি গুরুতর জখম করা হয়েছে। এ ঘটনায় মহেশখালী থানা ৬জনকে আসামি করে লিখিত এজাহার দেওয়া হয়েছে।

এজাহার সূত্র জানা যায় -গত ১৮ অক্টোবর রাত সাড়ে দশটার দিকে গোরাকঘাটা ৬ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ হিন্দু পাড়া এলাকার জনৈক মৃত মনিন্দ্র লাল দের পুত্র এনজিও কর্মী সমীর বরণ দে (৫০) গোরাকঘাটা বাজার থেকে নিত্য দিনের মতো কাজ শেষ করে বাড়ি ফিরছিলেন, এ সময় তিনি দক্ষিণ হিন্দু পাড়া ব্রাহ্মণ পুকুরের পশ্চিম পাশে সড়কে পৌঁছালে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা একই এলাকার মৃত দেবেন্দ্র লাল দে এর পুত্র ভুবন কান্তি দে এবং ভুবন কান্তি দে এর পুত্র যথাক্রমে পবন দে, জেকি দে, রকি দে, হিরু দে ও দেবেন্দ্রের স্ত্রী পূর্ণিমা দে বিভিন্ন ধারালো অস্ত্র- শস্ত্র নিয়ে সমীর বরণ দেয় এর উপর হামলে পড়ে। এ সময় তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। হামলাকারীরা ধারালো দা, লোহার রড় ও লাঠিসোটা নিয়ে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে হামলা চালায়। এ সময় তাকে হত্যার চেষ্টা চালানো হয় বলে অভিযোগে প্রকাশ। মূলতঃ হত্যার লক্ষ্যেই তাকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করা হয়। এ সময় পিটিয়ে ও কুপিয়ে ক্ষান্ত না হয়ে তার শরীরে কামড় পর্যন্ত দেওয়া হয় বলে সূত্রের অভিযোগ। হামলাকারীরা তার পকেটে থাকা ১০ হাজার টাকা ও একটি মোবাইল ফোন ছিনতাই করে নেয়। এক পর্যায়ে মুমূর্ষু অবস্থায় সড়কের উপর পুত্র সমীর বরণ দেকে ফেলে রেখে হামলাকারীরা স্থান ত্যাগ করে। পরে স্থানীয়রা  তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করান। 

এ ঘটনায় পরদিন সমীর নিজই বাদি হয়ে মহেশখালী থানায় ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলার এজাহার দায়ের করেন। পরে মহেশখালী থানার এএসআই মুফিজের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এদিকে এ ঘটনার পর হামলাকারীরা ধারাবাহিক ভাবে হুমকি দিয়ে আসছে বলে সূত্রের অভিযোগ। বর্তমানে তারা নিরাপত্ত্বাহীনতায় আছে উল্লেখ করে এ নিয়ে দ্রুত প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন। 

No comments

Powered by Blogger.